আশুলিয়ায় নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হলো মহান বিজয় দিবস

0

OLYMPUS DIGITAL CAMERA

বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং সবচেয়ে বড় অর্জন আমাদের বিজয় মাস। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মাধ্যমে এদিন বিশ্ব দরবারের মানচিত্রে স্থান করে নেয় একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ, বাংলাদেশ। যারা বুকের তাজা রক্ত দিয়ে এ বিজয়কে ছিঁনিয়ে এনেছেন বিন¤্র শ্রদ্ধা আর ভালবাসায়। তাদেরই স্বরণে শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ায় নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে উদযাপিত হলো এ মহান বিজয় দিবস। গতকাল মঙ্গলবার সরকারী-বেসরকারী, স্বায়িত্বশাসিত ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সংগঠনের উদ্দোগে এদিবসটি উপলক্ষে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধানিবেদন ও র‌্যালিসহ সভা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

_DSC0061

তন্মধ্যে স্বাধীন বাংলা গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের উদ্দোগে সংগঠণটির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শামীমা নাছরীনের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আযাদের উপস্থিতিতে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধানিবেদনের উদ্দেশ্যে প্রথমে একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি পল্লীবিদ্যুৎ এলাকা থেকে শুরু করে নবীনগর প্রদক্ষিণ করে স্মৃতিসৌধের সম্মূখে এসে সমাবেত হয়। সেখান থেকে নেতৃবৃন্দরা স্মৃতিসৌধে পুস্পাস্পক অর্পণ করে। এরপরে সংগঠণটির শ্রমিক নেতা শাকিল আহম্মেদের নেতৃত্বে সমাবেত নেতৃবৃন্দ ও শিল্প শ্রমিক সহ বিজয় দিবস সফলের লক্ষে বাইপাইল থেকে একটি র‌্যালি নিয়ে চিত্তবিনোদন পার্ক ফ্যান্টাসি কিংডমের সম্মূখে এসে সমাবেত হয়। পরে সেখানে সমাবেত বক্তারা শ্রমিকদের সম্মূখে বিজয় দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরেন। এ সময় সংগঠণটির কেন্দ্রী কমিটির সাধারণ সম্পাদক সমাবেতদের সম্মূখে সংগঠণটির আশুলিয়া থানা কমিটির সভাপতি আল-কামরান এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে শাকিল আহম্মেদকে ঘোষণা করেন। অন্যদিকে, বাংলাদেশ পোশাক শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়নের উদ্দোগে সংগঠণটির সভাপতি আলম পারভেজের নেতৃত্বে একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি ইউনিক এলাকা থেকে শুরু করে বাইপাইল, পল্লীবিদ্যুৎ এলাকা প্রদক্ষিণ করে স্মৃতিসৌধে গিয়ে সমাবেত হয়। পরে সেখানে তারা শহীদদের স্বরণে পুস্পাস্পক অর্পণ করে। এসময় র‌্যালি ও শ্রদ্ধানিবেদনে উপস্থতি ছিলেন, সংগঠণটির আশুলিয়া থানা সভাপতি আওলাদ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক চঞ্চাল মিয়াসহ আরো অনেকে।

Leave A Reply

Pinterest
Print