কুষ্টিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

1

image_258264.gun fireকুষ্টিয়ায় গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে জাকির হোসেন (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। কুষ্টিয়ায় জাতীয় শোক দিবসের র‍্যালির পর দুই পক্ষের সংঘর্ষে আওয়ামী লীগের কর্মী সবুজ নিহত হওয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলার সন্দেহভাজন আসামি ছিলেন তিনি। নিহত জাকির জেলার মিরপুর উপজেলার কলবাড়িয়া গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের ছেলে। পুলিশ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে সদর উপজেলার জগতি গ্রামের একটি বাগানে গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধ হয়। এতে জাকির হোসেন নামে ওই যুবক নিহত হন। এ ছাড়া এ ঘটনায় পুলিশের পাঁচ সদস্য আহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র, দুটি ধারালো অস্ত্র ও দুটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়।

গতকাল রাতে সাংবাদিকদের কাছে কুষ্টিয়া ডিবির ওসি সাব্বিরুল আলম দাবি করেন, সবুজ হত্যা মামলার আসামিরা জগতি গ্রামের একটি বাগানে গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছেন- এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ডিবির একটি দল সেখানে অভিযানে চালায়। এ সময় তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে।

প্রায় ২০ মিনিট ধরে দুই পক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের পর পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় নিহত ব্যক্তিকে শনাক্ত করে পুলিশ। এ ঘটনায় আহত পুলিশ সদস্যরা একই হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। ময়নাতদন্তের জন্য জাকিরের লাশ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান ডিবির ওই কর্মকর্তা।

বাংলাদেশেরপত্র/এডি/আর

1 Comment

Pinterest
Print