কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার বিরদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

0

শাহ্ আলম, কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের অপকর্ম, অসদাচারনসহ নানাবিধ দুর্নীতির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার সকালে কুড়িগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রাজারহাট উপজেলার চাকিরপশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের রাজারহাট, কুড়িগ্রাম ও রংপুর মহানগরের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক জাহিদ সোহরাওয়ার্দী বাপ্পী।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সবুজ ও পরিচ্ছন্ন রাজারহাট গড়ি এই শ্লোগানে ৭ লাখ গাছের চারা রোপনের কথা বলে প্রায় ১০ কোটি টাকা আদায় করে বেশির ভাগ টাকা আত্মসাৎ করেন। রাজারহাট উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যেক শিক্ষকের নিকট থেকে বাধ্যতামূলক ৪ শত টাকা করে আদায় করেন। উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নের প্রত্যেক চেয়ারম্যানের নিকট থেকে বৃক্ষরোপনের অজুহাতে এলজিএসপি প্রকল্পের ৪ লাখ টাকা করে আদায় করেন। এছাড়াও উপজেলার বার্ষিক উন্নয়নের জন্য কাবিটা, কাবিখা, টিআর, ৪০দিনের কর্মসূচীসহ সকল উন্নয়ন প্রকল্পের বরাদ্দের টাকা নিজস্ব কল্পনা প্রসুত বৃক্ষরোপন কর্মসূচী বাস্তবায়নের নামে নিজের পকেটস্থ করেন। সবার জন্য বাসস্থান নিশ্চিত করন প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব প্রকল্প আশ্রায়ন-২ এর আওতায় গৃহ নির্মাণের ৮০ থেকে ৭৫ ভাগ টাকা তিনি নাম মাত্র কাজ করে পকেটস্থ করেছেন। তিনি রাজারহাট উপজেলার জামে-মসজিদ নির্মাণের ১৩ কোটি টাকার তথ্য গোপন করেছেন। সম্প্রতি তিনি রাজারহাটের নাককাটি হাটে গিয়ে নিজেকে রাজারহাটের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষনা করেন।
এছাড়াও বিভিন্ন প্রকল্পের তথ্য গোপন, শিক্ষক ও চেয়ারম্যানদের সাথে খারাপ আচরন, মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান, রাজনৈতিক নেতাদের নেড়ি কুত্তা বলাসহ চাকুরী বিধি পরিপন্থি নানা অপকর্ম করে থাকেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা নির্বাহীর বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে তার আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন পুর্বক অপসারন দাবী করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি চাষী আব্দুস ছালাম, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক জীবন কুমার রায়, রাজারহাট উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ রজব আলী, বিদ্যানন্দ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ডাঃ আব্দুল হাকীমসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

Leave A Reply

Pinterest
Print