খাল দখল করে মাছ চাষ: ধান বীজে পঁচন, হতাশায় কৃষক!

0
গলাচিপায় খালে বাধঁ দিয়ে মাছ চাষ করায় পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ হয়ে বর্ষার মৌসুমে জলবদ্ধতায় পরিণত হয়ে কৃষকদের প্রায় হাজার একর জমির ধানের বীজের পচঁন ঘটায়।

গলাচিপায় খালে বাধঁ দিয়ে মাছ চাষ করায় পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ হয়ে বর্ষার মৌসুমে জলবদ্ধতায় পরিণত হয়ে কৃষকদের প্রায় হাজার একর জমির ধানের বীজের পচঁন ঘটায়।

গলাচিপা(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলায় খাল দখল করে মাছ চাষ করায় পানি নিস্কাশনের অভাবে প্রায় এক হাজার একর জমির ধান বীজ পচঁন ধরে নষ্ট হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, সরকারের নাম ভাঙ্গিয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী ‘মুন্সী সায়েন্টিফিক হ্যাচারী এন্ড ফিশারিজ লিমিটেড’র প্রজেক্ট ইনর্চাজ মো. আনছার মোল্লা ওরফে সোহেল র্কোটখালী ৫ নং ওয়ার্ডের সরকারি খালটি দখল করে বাধঁ দিয়ে বিভিন্ন ধরনের মাছ চাষ ও রেনুপোনার হ্যাচারি প্রতিষ্ঠা করে।
পানি নিষ্কাশনের কালভার্ট’টিতে ১০ ইঞ্চি ইটের গাঁথুনি করায় পানি উঠা-নামার পথ পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বর্ষার মৌসুমে সরকারি খালটি বন্ধ হয়ে জলবদ্ধতায় পরিণত হয়ে কৃষকদের পৌষ আমন ধানের বীজের পচঁন ঘটায়। এর ফলে চরম হতাশায় ভুগছেন কৃষকরা।
গ্রামের ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক আশরাফ আলী খান, আবু গাজী, মুসা খান, সেরাজ আলী খান, সোহরাব খাঁ, জলিল খাঁ, আশরাফ মোল্লাসহ অনেক কৃষক বলেন, প্রবাভশালীরা সরকারি খাল বন্ধ করে মাছ চাষ করে লাভবান হলেও আমরা চরম ক্ষতিগ্রস্থের মধ্যে পরেছি।
এ বিষয়ে আনছার মোল্লার সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। গলাচিপা উপজেলা কৃষি অফিসার আব্দুল মন্নানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমরা এ বিষয়ে তদন্ত করে দ্রুত ব্যবস্থা নেব।

Leave A Reply

Pinterest
Print