গমের মান নিয়ে প্রশ্ন :চট্টগ্রাম বন্দরে খালাস হলেও মংলায় না

0

নিম্নমানের গম

 

 

 

মংলা প্রতিনিধি ঃ-

খাবার অনুপোযোগী ও নিম্নমানের  হওয়ায় ফ্রান্স. ন্স থেকে আমদানি করা ২১ হাজার টন গম গ্রহন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মংলা বন্দর আমদানি গম খালাস তদারকি কমিটি। এর ফলে সাইপ্রাস পতাকাবাহি এম.ভি পিমটেল নামে একটি জাহাজ মংলা বন্দরের হারবারিয়ায় ৬ দিন ধরে এসেছে।

গম গ্রহন না করায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তদারকি কমিটির আহবায়ক খুলনা আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক কাজী নুরুল ইসলাম।

এরআগে চট্টগ্রামে এক দফা গম খালাস করা হয়েছে বলে জানান আমদানি কারক কতৃপক্ষ ।

আটকে যাওয়া গমের মূল্য প্রায় ৪৪ কোটি টাকা বলে জানার অঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক কাজী নুরুল ইসলাম জানান ফ্রান্স থেকে আমদানি করা গম নিয়ে জাহাজটি ১২ অক্টোবর দুপুরে মংলা বন্দরে প্রবেম করে। গমের মান পরীক্ষ করে ৬ সদস্যের কমিটি ১৩ অক্টোবর দুপুরে জাহাজে গিয়ে গম সরজমিনে দেখে ও নমুনা সংগ্রহ করে। পরীক্ষায় নিম্নমানের এবং খাবার অনুপোযোগী থাকায় গম গ্রহনে অস্বিকৃতি জানানো হয়। তিনি জানান বিষয়টি খাদ্য মন্ত্রনালয় সহ আমদানি কারক ঠিকাদারকে জানানো হয়েছে।

খাদ্র মন্ত্রনালয়ের জন্য এই গম আমদানি করেছে ঢাকার ইমপোর্ট কনসাল্টেন্ট গাই এ্যাস পতাকাবাহি এম.ভি পিনটেল জাহাজের স্থানীয় এজেন্ট লিড়মন্ড শিপিং এর ম্যানেজার সৈয়দ মুরতাজা আলি বাপ্পি জানান জাহাজটির মোট ৫২ হাজার ৫০০ টন গম আমদানি করা হয়েছিল চট্টগ্রামে। বন্দরে ৩১ হাজার ৫০০ টন খালাসের পর বাকী ২১ হাজার টন গম নিয়ে জাহাজটি মংলা বন্দরে আসে।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন যে গম চট্টগ্রামে খালাস হতে দোসের কি? আমদানি করা গমে একটু ডাস্ট বেশি কিন্তু খাবার অনুপোযোগী নয়। দাবি ঐ ম্যানেজারের।

Leave A Reply

Pinterest
Print