চট্টগ্রামে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে হেযবুত তওহীদের র‌্যালি ও আলোচনা সভা

0
চট্টগ্রামে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে হেযবুত তওহীদের র‌্যালি

চট্টগ্রামে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে হেযবুত তওহীদের র‌্যালি

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামে হেযবুত তওহীদের উদ্যোগে ”সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে জনসম্পৃক্ততার বিকল্প নেই” শীর্ষক র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার হেযবুত তওহীদের চট্টগ্রামের অলংকারে সংগঠনের বিভাগীয় কার্যালয় উক্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এর আগে একটি র‌্যালি অলংকার মোড় থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পূণ:রায় অলংকার মোড়ে শেষ হয়।
পরে আলোচনা সভায় মূখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন হেযবুত তওহীদের মুখপাত্র মো. শফিকুল আলম উখবাহ। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ”বর্তমানে যে ইসলাম চলছে তা প্রকৃত ইসলাম নয়। কারণ ইসলাম অর্থ শান্তি, কিন্তু বর্তমান ইসলামে সেই কাঙ্খিত শান্তি ও নিরাপত্তা নেই। বর্তমানে ইসলামের নামে জঙ্গিবাদ, ধর্মের নামে ব্যবসা, ধর্মের নামে অপরাজনীতি, স্বার্থপরতা, হানাহানি, দাঙ্গা-হাঙ্গামার সংস্কৃতি চালু হয়েছে। যা প্রকৃত ইসলামে ছিল না। ইসলামের নামে এসব কার্যক্রাম জনমনে যেমন আতঙ্ক সৃষ্টি করছে, তেমনি একদল মানুষ দিন দিন ইসলামের প্রতি বীতশ্রদ্ধ হয়ে পরছে।”
তিনি আরও বলেন, ‘‘শুধু আইন কিংবা শক্তি প্রয়োগ করে জঙ্গিবাদ নির্মূল সম্ভব নয়। কারণ জঙ্গিবাদ বিপথগামী হলেও একটি আদর্শিক পথ। এরা টাকার লোভে কিংবা ক্ষমতার লোভে নিজেদের প্রাণ উৎসর্গ করছে না। এমতাবস্থায় তাদেরকে ফেরানোর উপায় একটাই- আল্লাহর রসুলের জিহাদ ও জঙ্গিবাদীদের জিহাদের বৈপরীত্য পরিষ্কারভাবে তুলে ধরতে হবে। অর্থাৎ জঙ্গিবাদ নির্মূলে প্রয়োজন আদর্শিক লড়াই। আর এ আদর্শ একমাত্র হেযবুত তওহীদের কাছে আছে।”
বর্তমান পরিস্থিতিতে তিনি হেযবুত তওহীদের পক্ষ থেকে জাতি, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে এক ছাতার নিচে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ”গুলশান হামলা, শোলাকিয়া হামলা করে তার একটি ঘোলাটে পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়। এটা করতে দেওয়া হবেনা, আমাদের দেশকে সিরিয়া-আফগানের মত পরিস্থিতি করতে দেওয়া যাবে না। আমাদের প্রিয় জন্মভূমি বাংলাদেশকে আমাদেরকেই রক্ষা করতে হবে।”
এছাড়া উক্ত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন পাহাড়তলি থানা আ.লীগ সাধারন সম্পাদক মোজাফফর আহামেদ মাসুম, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন পাহাড়তলি থানা শাখার সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, ফেনী জেলা আমির দিল আফরোজসহ স্থানীয়গণ্যমাণ্য ব্যক্তি-বর্গ ও হেযবুত তওহীদের সদস্যবৃন্দ।

Leave A Reply

Pinterest
Print