ছিট মহলের বাসিন্দাদের মধ্যে বইছে আনন্দ উল্লাস ও খুশির হাওয়া

0

 

 

Dasiar Sora 06.12.14

ফুলবাড়ী(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম ফুলবাড়ী উপজেলার ছিটমহল“ছিটকরলার কাছে ভাররেতের কোচবিহার জেলার সীমান্ত শহর দিনহাটার নয়ারহাটের ডাকুরহাট এলাকায় নির্বাচনী জনসভায় ছিটমহল বিনিময়ে তার সম্মতি জানান। এ খবরে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে অবস্থিত ভারতের ১১১টি ছিট মহলের বাসিন্দাদের মধ্যে বইছে আনন্দ উল্লাস ও খুশির হাওয়া। পাড়া মহল্লায় চলছে মিষ্টি খাওয়ার ধুম। গত বৃহস্পতিবার সরেজমিন ফলবাড়ী উপজেলা সদরের অভ্যন্তরে অবস্থিত ভারতের ১৫০ নম্বর ছিটমহল দাছিয়ারছড়ায় গিয়ে দেখা যায় পাড়া, মহল্লা এবং বাড়ির আঙ্গিনায় নারী,পুরুষ,শিশু সবাইর সরব উপস্থিতি। সবার মুখে মমতা ব্যানার্জীর ছিট বিনিময়ে সম্মতির কথা। অনেকেই পত্র,পত্রিকা এবং অনলাইনে সংবাদ পড়েছেন। আবার কেউ কেই টিভিতে দেখেছেন। আবার কেউ কেউ মমতা ব্যানার্জীর বক্তব্য সরাসরি রেকর্ড করে নিয়ে এসে সবাইকে শোনাচ্ছেন। এরপর চলে মিষ্টি বিতরণ।
ভারতীয় ছিটমহল দাসিয়ের ছড়ার গৃহবধু রাহেলা (৪৫), এ্যালেকজন (৫০)ও গংগারহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী আয়শা সিদ্দিকা জানান, মমতা বন্দোপাধ্যায় আমাদের সমস্যা বুঝেই সম্মতি দিয়েছেন। ছিটমহল বিনিময় হলে আমাদের আর মিথ্যা পরিচয় দিয়ে স্কুলে পড়াতে ও পড়তে হবে না। এখন আমরা বলতে পারব বাংলাদেশের নাগরিক। স্বাস্থ্য চিকিৎসাসহ যোগাযোগের আমুল পরিবর্তন হবে। প্রসুতিদের আর অকালে মৃত্যু বরণ হবে না। সত্তুর বছরের এছাহক জানালেন, আমরা এখন খুবই খুশি বাংলাদেশের নাগরিক। আবাদ করতে গেলে আগে যে সার তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষ পত্রের সমস্যা হতো তা আর হবে না। ন্যাশনাল লাইফ ইনন্সুরেন্স কর্মি রফিকুল জানান, এখন আমরা বীমার কাজ সুস্থ ভাবে করতে পারব। ব্যবসা বাণিজ্যের কোন সমস্যা হবে না। জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন হবে। আমাদের এখন নাগরিক পরিচয় হলো। মোবাইল ফোনে ভারত বাংলাদেশ ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির ভারতীয় সহসাধারন সম্পাদক দীপ্তিমান সেনগুপ্ত যুগান্তরকে জানান, মমতার ঘোষনার পর ১৬২টি ছিটমহলে আনন্দের জোয়ার বইছে। বাংলাদেশ ইউনিটের সভাপতি মইনুল হক ও সাধারন সম্পাদক গোলাম মোস্তফা খাঁন জানান, ছিটমহল গুলোতে সত্যের জয় হয়েছে। বিশেষ করে যারা এর বিরোধীতা করেছেন তাদের পরাজয় হয়েছে। দিদি মমতার সম্মতিতে এখন এটি ভারতের লোকসভায় পাশ হওয়া সময় মাত্র। আশা করছি এটি দ্রুত পাশ হবে। পাশ হলে আমাদের ছিটমহলের মানুষের অবরুদ্ধ জীবন থেকে মুক্তি পাবে। অধির আগ্রহে আমরা অপেক্ষা করছি।

Leave A Reply