দোয়াবাজারের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ফজলুল হকের চির বিদায়

0

12654294_1637187866547076_5868443280991702098_nআশিস রহমান, দোয়াবাজার প্রতিনিধি: দোয়ারাবাজার উপজেলার বৃহত্তর টেংরাটিলার কৃতিসন্তান, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ফজলুল হক সাহেব আর নেই। বৃহঃস্পতিবার সকাল ১০:৫০ মিনিটে টেংরাটিলায় উনার নিজ বাড়িতে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন। মৃত্যু কালে উনার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। সদা সংগ্রামী ও সাহসী এই মানুষটি মৃত্যু কালে স্ত্রী, ৬ পুত্র ও ৩ কন্যা সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। এদিকে ওইদিন বিকাল পাঁচটায় টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে মরহুমের জানাযা সম্পন্ন হয়েছে। জানাযায় অসংখ্য মানুষের সমাগম হয়েছিল। জানাযার একপর্যায়ে মরহুম ফজলুল হক সাহেবের বর্নাঢ্য কর্মময় জীবনী ও উনার শোকার্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম, সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ জাহান মাস্টার, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হালিম বীরপ্রতীক, টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন আহাম্মদ, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক আব্দুস সালাম, নূরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহম্মদ মশি উর রহমান, মরহুম ফজলুল হক সাহেবের বড় ছেলে উকিল প্রমুখ। বক্তব্যে বক্তারা মরহুম ফজলুল হক সাহেবের শোকার্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান এবং এলাকার উন্নয়নে উনার সার্বিক অবদান তুলে ধরেন।
উল্লেখ, মুক্তিযুদ্ধের সময়ে মরহুম ফজলুল হক সাহেব গুরুত্ব পূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তিনি উনার এলাকার সকল মানুষকে স্বাধীনতা অংশ গ্রহনে উদ্বুদ্ধ করেন। মুক্তিযুদ্ধ কালীন সময়ে শরনার্থী শিবিরের দায়িত্বেও তিনি নিয়োজিত ছিলেন এবং রিলিফ কমিটিরও সদস্য ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে স্বাধীন বাংলাদেশ পুনর্গঠনে উনার ভূমিকা অপরিসীম। এলাকার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান এবং সামাজিক ও রাজনীতিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে তিনি প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত ছিলেন।

Leave A Reply

Pinterest
Print