দোয়ারাবাজারের সুরমা ইউপি নির্বাচন : পদপ্রার্থীদের চলছে দৌড়ঝাপ

0

download (3)দোয়াবাজার প্রতিনিধি: দোয়ারাবাজার উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের ভোটারদের মন জয় করতে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছেন সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদ প্রার্থীরা। সুরমা ইউনিয়নের সুদীর্ঘ রাজনীতিক ইতিহাস পর্যালোচনা করে দেখা যায় অত্র ইউনিয়নের ভোটারদের কাছে দলের চেয়ে ব্যক্তি বড়। উপজেলার নয়টি ইউনিয়নের মধ্যে এক মাত্র সুরমা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হচ্ছেন বিএনপি সমর্থিত,বাকি ৮ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হলেন আ.লীগের সমর্থিত। উপজেলার সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনী হাওয়া বইছে এখন প্রতিটি গ্রামে গঞ্জে, পাড়া মহল্লায় ও চায়ের দোকানে। বৃহত্তর লক্ষীপুর ইউনিয়ন ভেঙে ২৮ টি গ্রাম নিয়ে সুরমা ইউনিয়ন গঠিত হয়। ২০১৩ এর হালনাগাত অনোযায়ী পুরুষ মহিলা সহ মোট ভোটার রয়েছেন ১১৩৬৫ জন।বর্তমানে ভোটের হাওয়া বইছে নির্দলীয় ভাবে। ভৌগলিক, প্রাকৃতিক ও ঐতিহাসিক দিক দিয়ে সুরমা ইউনিয়ন উপজেলার অন্যান্য ইউনিয়নের তুলনায় গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে। দেশের অন্যতম জ্বালানী শক্তি প্রাকৃতিক গ্যাসের সম্ভার টেংরাটিলা গ্যাস ফিল্ডটি সুরমা ইউনিয়নে অবস্থিত। ঐতিহাসিক দিক দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজরিত সুরমা ইউনিয়নে জন্ম গ্রহন করেছে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান দুজন বীর প্রতীক খেতাব প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা সহ অগনিত মুক্তিযোদ্ধা। রাজনীতিক ইতিহাসের দিক দিয়ে দোয়ারাবাজার উপজেলার একমাত্র সাবেক সংসদ সদস্য এড.আব্দুল মজিদ মাস্টার সুরমা ইউনিয়নের কৃতিসন্তান। এছাড়া শিক্ষার দিক দিয়েও অপরাপর ইউনিয়নের তুলনায় সুরমা ইউনিয়ন সর্বাগ্রে এগিয়ে আছে। সর্বোপরি সার্বিক দিক দিয়ে সুরমা ইউনিয়ন কৌশলগত অবস্থানে রয়েছে। এবারের ইউপি নির্বাচনে প্রত্যেক প্রার্থীই নিজ দলের দলীয় প্রতীকের আশাবাদী। ভোট যুদ্ধে লড়াইয়ের আশঙ্কা রয়েছে ১২ জন প্রার্থী। ইউনিয়নের অনেক ভোটার তাদের ভিন্ন মত পোষন করছেন। তারা বলেন এবার আমরা তাকেই নির্বাচিত করব যে আমাদের ইউনিয়নে উন্নয়ন করতে পারবে।

আ.লীগ সমর্থিত সম্ভাব্য প্রার্থী রয়েছেন ৭ জন, সুরমা ইউপি আ.লীগ সভাপতি ফরিদ উদ্দিন আহাম্মদ মাস্টার, খন্দকার মো.মামুনুর রশিদ,এডভোকেট মো.আনোয়ার হোসেন, আব্দুর রহিম, মইনুল ইসলাম,মো.হুমায়ূন রশিদ ইবনে ইউছুফ আলী তালুকদার, মো.তাজুল ইসলাম।বিএনপি সমর্থিত দুই বলয়ের প্রার্থী রয়েছেন ৩ জন। বর্তমান চেয়ারম্যান মো.শাহজাহান মাষ্টার, মো.আব্দুর রশিদ, মো.হজরত আলী। জামাত সমর্থিত প্রার্থী রয়েছেন ১ জন আব্দুল বাকি। সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন ১ জন, মো: গোলাম রহমান গোলাপ। আ.লীগ সমর্থিত সম্ভাব্য প্রার্থী সুরমা ইউনিয়ন আ.লীগ সভাপতি ও টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক, শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিত্ব ফরিদ উদ্দিন আহাম্মদ মাস্টার বলেন, আমি দীর্ঘদিন যাবত এলাকার শিক্ষা, সংস্কৃতি, সামাজিক ও রাজনীতিক উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত রয়েছি। ইউনিয়নের সার্বিক উন্নয়নে ইউনিয়নবাসির পাশে ছিলাম, আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকব। দলীয় প্রতীকে মনোয়ন পেলে ইনশাআল্লাহ বিপুল ভোটে বিজয়ী হব। আ.লীগ সমর্থিত সম্ভাব্য প্রার্থী সাবেক ছাত্রলীগ সহ সভাপতি,সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, খন্দকার মো.মামুনুর রশিদ, বলেন, উন্নয়ন ও সুবিধা বঞ্চিত ইউনিয়ন বাসির পাশে দাড়াতে ইউনিয়নের জনগনের সর্বাত্মক সহযোগীতা কামনা করি। আমি গত নির্বাচনেও প্রতিদন্দীতায় ছিলাম এবারও নির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে মাঠ পর্যায় জন গনের পাশে আছি। আমি দলের সাথে সব সময় কাজকরে আসছি। দলীয় নির্বাচনের প্রতীক অবশ্যই আমি পাব বলে আশাকরি। আওয়ামীলীগ সমর্থিত বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও জেলার শ্রেষ্ঠ মৎসচাষী আব্দুর রহিম বলেন, ইউনিয়নের সামাজিক উন্নয়ন কর্মকান্ডে আওয়ামীলীগের হয়ে দীর্ঘ দিন যাবত কাজ করে আসছি। এবারের নির্বাচনে দলীয় প্রতীকে মনোয়ন পেলে বিপুল ভোটে বিজয়ী হব বলে আশাবাদী। আশা করি ইউনিয়নবাসি ও দলীয় নেতা কর্মীর সার্বিক সহযোগিতা পাব। আ.লীগ সমর্থিত এডভোকেট মো.আনোয়ার হোসেন বলেন, আমি দীর্ঘ দিন ধরে দলের হয়ে কাজ করে যাচ্ছি আমি আশাবাদী এবারের নির্বাচনে আমিই দলের মনোনয়ন পাব। বিগত নির্বাচনেও প্রতিদন্দীতায় ছিলাম। তবে যদি দলের সিদ্ধান্তে আর কাউকে মনোনয়ন দেয়া হয় তাহলে আমি দলের সিদ্ধান্তকেই মেনে নেব। দলীয় প্রতীক নিয়ে যেই আসুক আমি তার হয়ে কাজ করব। আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী উপজেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য সফিকুল ইসলাম বলেন, আগমী নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করার জন্য আমি সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েই মাঠ পর্যায়ে কাজ করছি। ইউনিয়নবাসির সার্বিক সহযোগিতা ও দলীয় প্রতীক পেলে ইনশাআল্লাহ বিপুল ভোটে বিজয়ী হব। আওয়ামীলীগ সমর্থিত মো.হুমায়ূন রশিদ ইবনে ইউছুফ আলী তালুকদার, বলেন ইউনিয়নবাসির সার্বিক সহযোগিতা পেলে এবং দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হলে আমি এবারের নির্বাচনে বিজয়ী হব ইনশাআল্লাহ। আ.লীগ সমর্থিত সাবেক ছাত্র নেতা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো.তাজুল ইসলাম বলেন, আগামী নির্বাচনে আ.লীগের প্রার্থী হিসেবে প্রচার প্রচারনায় আছি। আশাকরি আমার জনপ্রিয়তা অনুযায়ী আমি দলের প্রার্থীতা পাব। আ.লীগ সমর্থিত মইনুল ইসলাম বলেন এবারের নির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে জনগনের পাশে আছি। নির্বাচনে বিজয়ী হবার আসা রেখে ইউনিয়নবাসির সেবায় সার্বক্ষনিক পাশে থাকার চেষ্টা করছি। তবে আমার সমর্থন অনুযায়ী দলের নেতা কর্মী আমাকেই প্রার্থী হিসেবে ঘোষনা করবেন বলে আশা করি। বিএনপি সমর্থিত ছাতক উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী মিজান গ্রুপের উপজেলা বিএনপির সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান মো.শাহজাহান মাষ্টার,তিনি বলেন আমি বৃহত্তর লক্ষীপুর ইউনিয়নে পর পর দু বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলাম এবং বর্তমানে সুরমা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে জন গনের সেবা করে যাচ্ছি। জন সেবায় নিজেকে সব সময় নিয়োজিত রাখার চেষ্ঠা করে আসছি। আসা করি আগামীতেও বিপুল ভোটে বিজয়ী হব।

বিএনপির সমর্থিত সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমেদ মিলন গ্রুপের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মো.আব্দুর রশিদ, তিনি জানান আমি গত নির্বাচনে প্রতিদন্দীতায় অল্প ভোটের জন্য নির্বাচিত হতে পারিনি। আমি আমার নির্বাচনী এলাকার জনগনের পাশে সব সময় সুখে দুঃখে পাশে আছি। সেবা বঞ্চিত জনগনের পাশে থেকে সব সময় সেবা করার চেষ্টা চালিয়ে যাব। দলীয় প্রতীকের ব্যাপারে তিনি বলেন আমার জন সমর্থন অনুযায়ী আমিই দলের মনোনয়ন পাব আশাকরি। দলের নেতা কর্মী যাচাই করে আমার সমর্থন অনুযায়ী আমাকেই দলের মনোনিত প্রার্থী হিসেবে ঘোষনা করবেন। বিএনপি সমর্থিত সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমেদ মিলন গ্রুপের আরেক সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মো.হজরত আলী জানান, আমি গত নির্বাচনের প্রার্থী ছিলাম এবারও জন সমর্থন নিয়ে প্রার্থী হিসেবে জন সেবায় মাঠ পর্যায়ে জনগনের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছি। জনসমর্থন অনুযায়ী দলীয় প্রতীক পাব বলে আশা করি। জামাতের এক মাত্র প্রার্থী হিসেবে প্রচারনা চালাচ্ছেন কুয়েত জামাতের সদস্য আব্দুল বাকি, তিনি কুয়েত থেকে প্রতিনিধিকে মোবাইল ফোনে জানান, তিনি শিগ্রই নির্বাচনের আগেই দেশে ফিরবেন। বর্তমানে উনার বড় ভাই মো.নিজাম উদ্দিন,এলাকায় উনার হয়ে মাঠে নির্বাচনী প্রচারনায় ব্যস্ত রয়েছেন। অন্যদিকে এবারের সুরমা ইউপি নির্বাচনের একমাত্র সতন্ত্র প্রার্থী (কুয়েত প্রবাসী ) মো: গোলাম রহমান গোলাপ মোবাইল ফোনে প্রতিনিধিকে বলেন, আমি দলাদলির উর্ধ্বে। সুরমা ইউনিয়নবাসির সেবায় অতীতেও ছিলাম, বর্তমানেও আছি এবং ভবিষ্যতে থাকব। তিনি আরও বলেন, নির্বাচিত হলে তরুন প্রজন্মেকে সঠিকভাবে কাজে লাগিয়ে দলমত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধ ভাবে একটা সুন্দর ইউনিয়ন গঠনের চেষ্টা করবো। আমার বিশ্বাস জনগণ বরাবরের ন্যায় এবারও আমার পাশে থাকবে।তিনি জানান, নির্বাচনের ঘোষণা আসলেই দেশে ফিরবেন। বর্তমানে তিনি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

Leave A Reply

Pinterest
Print