নেত্রকোনায় হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

0

নেত্রকোনা প্রতিনিধি:
নেত্রকোনায় দুই ধর্মের প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে এক যুবককে হত্যার ঘটনায় তিন আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। নেত্রকোনার অতিরিক্ত দায়রা জজ মো. আব্দুল হামিদ বুধবার চাঞ্চল্যকর এই মামলার রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সদর উপজেলার কুমড়ী গ্রামের বীরেন্দ্র সরকারের ছেলে মনোরঞ্জন সরকার মনু (৩২), পূর্বধলা উপজেলার খলিশাউর গ্রামের কুনীল সরকারের ছেলে সজিত সরকার (২০) ও ময়মনসিংহের গৌরিপুর উপজেলার হরুদা গ্রামের উপেন্দ্র সরকারের ছেলে দীপেন্দ্র সরকার (২২)। তারা তিনজনই পলাতক। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি তাদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরো পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন বিচারক। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত দুই আসামিকে খালাস দিয়েছে। এ আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত পিপি মোহাম্মদ সাইফুল আলম প্রদীপ জানান, নেত্রকোনা সদর উপজেলার রৌহা ইউনিয়নের কুমড়ী গ্রামের আশু চন্দ্র সরকারের মেয়ে চম্পা রানী সরকার (১৭) ও পাশের আমলী কেশবপুর গ্রামের শাহাব উদ্দিন খানের ছেলে শফিকুল ইসলাম খান (১৮) নেত্রকোনা উচ্চ বিদ্যালয়ে একই সঙ্গে লেখাপড়া করত। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠায় শফিকুল প্রায়ই চম্পাদের বাড়িতে যাতায়াত করত। চম্পার পরিবার বিষয়টি সহজভাবে মেনে নিতে না পারায় ২০০৪ সালের ২০ নভেম্বর রাতে তাদের আত্মীয়রা শফিকুলকে ডেকে নিয়ে হত্যা করে। এরপর তার লাশ ফেলে রাখা হয় কুমড়ী গ্রামের মনোরঞ্জনের পুকুরে। শফিকুলের বড় ভাই জহিরুল ইসলাম খান পরদিন পাঁচজনকে আসামি করে নেত্রকোনা মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ২০০৫ সালের ১১ সেপ্টেম্বর পাঁচজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।

Leave A Reply

Pinterest
Print