পিনাকডুবি: ৮ কর্মকর্তার অপসারণ চেয়ে নোটিস

0

স্টাফ রিপোর্টার:

মুন্সীগঞ্জের মাওয়ায় কয়েকশ যাত্রী নিয়ে লঞ্চডুবির ঘটনায় ৮ সরকারি কর্মকর্তার অপসারণ চাওয়া হয়েছে এক উকিল নোটিসে। নৌ, সড়ক ও রেলপথ জাতীয় রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক আশীষ কুমার দে এবং সিটিজেন রাইটস মুভমেন্টের মহাসচিব তুসার রেহমানের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. এনামুল হক মোল্লা বুধবার এই উকিল নোটিস পাঠান। নোটিসে যে আট কর্মকর্তার অপসারণ চাওয়া হয়েছে, তাদের ছয়জনই বিআইডব্লিউটিএ’র।

এরা হলেন- বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান, পরিবহন পরিদর্শক (মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌপথ), মাওয়া নদীবন্দর কর্মকর্তা, পরিচালক (বন্দর বিভাগ), পরিচালক (নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগ) এবং পরিচালক (নৌ সংরক্ষণ ও পরিচালনা বিভাগ)। অন্য দুই কর্তকর্তা হলেন- সমুদ্র পরিবহন অধিদপ্তরের পরিদর্শক (মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌপথ) এবং  প্রকৌশলী ও জাহাজ জরিপকারক (মাওয়া অঞ্চল)। মাদারীপুরের কাওড়াকান্দি থেকে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া ঘাটে যাওয়ার পথে গত ৪ অগাস্ট পদ্মায় ডুবে যায় পিনাক-৬ নামের লঞ্চটি। আট দিনেও ডুবে যাওয়া লঞ্চের অবস্থান সনাক্ত করতে না পারায় স্থানীয় প্রশাসন গত ১১ অগাস্ট তল্লাশি অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করে। প্রশাসনের তথ্য অনুযায়ী, লঞ্চডুবির পর এ পর্যন্ত নদীর ভাটিতে বিভিন্ন স্থান থেকে মোট ৪৮টি লাশ উদ্ধার হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছে ৬১ জন। উকিল নোটিসে বলা হয়, ঈদ মৌসুমে আবহাওয়া খারাপ থাকার পরও কোনো ‍উদ্ধারকারী জাহাজ মাওয়ায় ছিল না। থাকলে তাৎক্ষণিক উদ্ধার কাজ শুরু করা সম্ভব হতো এবং ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার করা সম্ভব হতো।  এ জন্য বিআইডব্লিউটিএ’র নৌ সংরক্ষণ ও পরিচালনা বিভাগের পরিচালককে দায়ী করা হয়েছে উকিল নোটিসে। বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যানকে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে দায়ী করার পাশাপাশি অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে খারাপ আবহাওয়ায় লঞ্চ চলতে দেয়ার জন্য বাকিদের প্রত্যক্ষভাবে দায়ী করা হয়েছে। নোটিস পাওয়ার ৭২ ঘন্টার মধ্যে এই আট কর্মকর্তাকে দায়িত্ব থেকে অপসারণ করে তাদের বিরুদ্ধে বিধি অনুসারে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিবকে অনুরোধ করা হয়েছে। পাশাপাশি নৌ-নিরাপত্তা ও জাতীয় স্বার্থে সারা দেশে নৌ-শুমারির কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ এবং সমুদ্র পরিবহন অধিদপ্তরকে শক্তিশালী ও গতিশীল করতে ব্যবস্থা চাওয়া হয়েছে নোটিসে। এ লক্ষ্যে সংস্থাটির জনবল কাঠামো সংশোধন করে আধুনিক-যুগোপযোগী করার কার্যকর ব্যবস্থা নিতে নৌ সচিব ও সমুদ্র পরিবহন অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে অনুরোধ করেছেন নোটিসদাতারা। নোটিসের চাওয়া অনুসারে ব্যবস্থা না নিলে হাই কোর্টে রিট করা হবে বলেও জানিয়েছেন তারা।

Leave A Reply

Pinterest
Print