ফেনীতে পাহাড়ি ঢলে ভেসে গেছে কয়েক’শ বসতবাড়ি

0

প্রবল বর্ষণ ও ভারত থেকে নেমে আসা ঢলে ফেনীর মুহুরি নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে ফুলগাজী বাজারসহ আটটি গ্রাম। ভেসে গেছে কয়েক’শ বসতবাড়ি, গাছপালা, পুকুরের মাছ ও ফসলি জমি। এতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে সেখানকার হাজার হাজার জনজীবন।

বন্যার পানিতে সব হারিয়ে নিঃস্ব হতে হয়েছে ফুল গাজীর ৭ টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষকে। শুক্রবার গভীর রাতে ফেনীর মুহুরি নদী দিয়ে ধেয়ে আসা ভারতীয় পাহাড়ি ঢলের পানির তোড়ে ভেঙ্গে যায় ফুলগাজীর উত্তর দৌলতপুর এবং দক্ষিণ দৌলতপুর গ্রামের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের দুটি অংশের প্রায় ৭০ ফুট দৈর্ঘ্যের বাঁধ। এতে ভেসে যায় বসত বাড়ি, গাছপালা, পুকুরের মাছ ফসলি জমিসহ অনেকের ঘর বাড়িও।

একই রাতে পানি উন্নয়ন বোর্ড মুহুরি নদীর পরশুরাম পয়েন্টে পানি বিপদ সীমার ১২০ থেকে ৮০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল বলে রেকর্ড করে। আর এ বাঁধ ভাঙা ঢলের পানিতে একে একে প্লাবিত হতে থাকে ফুলগাজী বাজার, শাহা পাড়া, উত্তর ও দক্ষিণ দৌলতপুর, বৈরাগপুর, পশ্চিম ও উত্তর ঘনিয়ামোড়া,বরইয়া,পার্শ্ববর্তী উপজেলা পরশুরামের ট্যাটেশ্বরসহ ৮টি গ্রাম। তলিয়ে যায় প্রায় এক হেক্টর জমির ফসল। চরম দুর্ভোগে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এসব গ্রামের জনজীবন।

এদিকে ফেনী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রমজান আলী জানালেন, এভাবে বৃষ্টি চলতে থাকলে বাঁধের আরও একাধিক স্থানে ভাঙন দেখা দিতে পারে। এ ক্ষেত্রে বন্যার পানি নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত নেয়া যাবে না স্থায়ী কোনো ব্যবস্থাও।

ফেনীর আবহাওয়া অফিস শুক্রবার ভোর ৬টা থেকে ২৪ ঘণ্টায় এ বছরের সর্বোচ্চ ১৮৫ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করে।

ভারত থেকে ধেয়ে আসা এ পাহাড়ি ঢলে এ খানকার ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় দুই শতাধিক পরিবারের ১০ হাজার লোকের কাছে এখনোও পৌঁছায়নি সরকারি কোন সাহায্য সহযোগিতা। আর সব কিছু হারিয়ে নিঃস্ব এসব লোক জন এখন সামনের দিনগুলো কিভাবে কাটাবে তা নিয়ে এখন যেন চিন্তিত।

বাংলাদেশেরপত্র/এডি/এ

Leave A Reply

Pinterest
Print