বেগম রোকেয়া বিশ্বাবিদ্যালয়ে বোমা সদৃশ্য ৪ টি ককটেল উদ্ধার

0

img0024a
তপন কুমার রায়, বেরোবি প্রতিনিধি, রংপুর: রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস থেকে পুলিশ চারটি বোমা সদৃশ্য ককটেল উদ্ধার করেছে। গতকাল সকাল ৮ টায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ক্যাম্পও কোতয়ালী থানার দায়িত্বরত উপপরিদর্শক মোঃ শফিকুল ইসলাম শফিকের নেতৃত্বে প্রশাসনিক ভবনের দক্ষিন গেটের এক দফা এক দাবির আন্দোলন মঞ্চের পাস থেকে তিনটি এবং শিক্ষার্থীদের বাস দাড়ানোর দেবদারু রোড থেকে একটিসহ মোট চারটি ককটেল উদ্ধার করে। ককটেল উদ্ধারের খবরে ক্যাম্পাসে আতঙ্ক ছরিয়ে পরেছে । প্রত্যক্ষ দর্শী মোঃ নাজমুল হক বলেন, আব্দুল ওয়াহাব ও নায়েক হোসেন লিমনসহ আমরা তিনজন প্রশাসনিক ভবনে নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলাম। সকাল সময় ৭.০০ টায় ভবন থেকে বেড় হওয়ার সময় ভবনের সামনে তিনটি লাল সদৃশ্য বস্তু দেখতে পাই। এর পরে পুলিশকে জানাতে যাওয়ার সময় রা¯তায় আর একটি একই ব¯তু দেখি। পরে পুলিশ খবর পেয়ে সেগুলো নিয়ে যায়।
এদিকে ককটেল উদ্ধারের খবরে এক দফা এক দাবিতে আন্দোলনরত কর্মকর্তা কর্মচারীরা তাৎক্ষনিক ভাবে উপাচার্যের বিরুদ্ধে ভয় ভীতি দেখিয়ে আন্দোলন বন্ধ করার অভিযোগ এনে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করে। ককটেল উদ্ধারের ব্যাপারে তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক ডঃ পরিমল চন্দ্র বর্মন বলেন,আন্দোলন দমন করার জন্যই উপাচার্যের লোকজনই ককটেল মারার পরিকল্পনা করেছে। আমারা অনকে শাšত ভাবে আন্দোলন করে আসছি। আমাদের এক দফা এক দাবির আন্দোলন নস্যাৎ করতে ভি.সি. এই ঘটনা ঘটিয়েছে। আমারা এর তিব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছি। শিখার্থীদের বাস দাড়ানোর স্থানে ককটেল উদ্ধারের ব্যাপারে তিনি আরও বলেন শিক্ষার্থীরা আমাদের আন্দোলনের সঙ্গে তাদের দাবী নিয়ে একাত্মা ঘোষনা করায় তারা যাতে আন্দোলনে না আসে সে ভয় দেখিয়ে শিখার্থীদের প্রতি এই ককটেল মারা পরিকল্পনা করা হয়েছে।
ককটেল উদ্ধারের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মোঃ শাহাজামান বলেন,ককটেল উদ্ধারের খবর পেয়েছি। কে বা কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তার সুষ্ঠ তদন্তের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ক্যাম্প ও কোতয়ালী থানার দায়িত্বরত উপপরিদর্শক মোঃ শফিকুল ইসলাম শফিক ককটেল উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমরা খবর পেয়ে চারটি ককটেল সদৃশ্য লাল টেপে মোড়ানো পরিত্যক্ত বস্তু উদ্ধার করি। সেগুলো তাজা বা নিষ্কৃয় কি না বোমা বিশেষজ্ঞ দল এসে যাতে পরীক্ষা করে তার জন্য আবেদন জানানো হয়েছে। কে বা কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তা সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে বের করা হবে।
এদিকে, এক দফা এক দাবি-উপাচার্যের অপসারনের দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রেখে শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. সাইদুল হক বলেন, সকাল ১১টা থেকে গণ অনশনের মধ্য দিয়ে ভিসিকে অপসারণের জন্য গণ স্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করে মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে প্রেরন করা হবে।

Leave A Reply

Pinterest
Print