মাখনের অজানা কিছু ব্যবহার

0

maxresdefaultরকমারি ডেস্ক:
সকালের খাবারে পাউরুটিতে মাখন না হলে অনেকের নাস্তাই হয় না। বেকিংয়ের কাজে মাখনের গুরুত্ব সবচাইতে বেশি। কিন্তু এই মাখনের ব্যবহার কি শুধু মাত্র খাওয়া পর্যন্তই। মোটেই নয়। এই মাখন বা বাটার আপনি ব্যবহার করতে পারেন দৈনন্দিন অনেক কাজে, যার বেশিরভাগই আমাদের অজানা। জানতে চান কী সেই কাজগুলো। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক মাখনের অজানা দারুণ সব ব্যবহার সম্পর্কে।
১) দরজার শব্দ বন্ধ করতে
দরজার কব্জা পুরোনো হয়ে গেলে ক্যাঁচক্যাঁচ শব্দ করে যা খুবই বিরক্তিকর। হাতের কাছে তেল বা অন্য কিছু না পেলে কব্জায় খানিকটা মাখন লাগিয়ে দিন। দেখবেন শব্দ বন্ধ হয়ে গিয়েছে।
২) হাতে লিগে যাওয়া আঠা ছাড়াতে
আঠা দিয়ে কোনো কাজ করছেন, হাতে লিগে গেলো। আপনি সাবান ও পানি দিয়ে এই আঠা তুলতে পারবেন না। প্রথমে একটু মাখন লাগিয়ে নিন আঠার উপর। খানিকক্ষণ ঘষে নিলেই দেখবেন দূর হয়ে গিয়েছে আঠা। এরপর সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলতে পারবেন।
৩) ক্যাপস্যুল গিলে নিন মাখনের সাহায্যে
অনেকেই ক্যাপস্যুল গিলতে পারেন না। দেখা যায় পানি পান করলেও তা গলায় গিয়ে আটকে থাকে যা কিছুতেই গেলা যায় না। এই সমস্যায় পড়তে না চাইলে ক্যাপস্যুলে একটু মাখন লাগিয়ে নিন। ব্যস, সমস্যার সমাধান।
৪) ত্বকের সুরক্ষায়
রুক্ষ শুষ্ক ত্বকের যত্নে মাখনের তুলনা নেই। ত্বক ফেটে যাওয়া ও শুকিয়ে যাওয়ার সমস্যায় ত্বকে নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন
মাখন। এছাড়াও ত্বকে মাখনের ব্যবহার ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। পুরোনো কাটাছেড়ার দাগের উপর নিয়মিত মাখন ব্যবহার করলে
দাগ দূর হয়।
৫) চীজ সংরক্ষণ করতে
চীজ ব্যবহারের পর ফ্রিজে রাখার আগে এতে মাখন লাগিয়ে ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন। এতে করে চীজ অনেকটা সময় সংরক্ষণ করতে পারবেন।
৬) নুডলস বা পাস্তা ঝরঝরে করতে
নুডলস বা পাস্তা সেদ্ধ করার সময় পানিতে সামান্য বাটার দিয়ে দিন। এতে করে নুডলস বা পাস্তা বেশি সেদ্ধ হয়ে গেলেও একসাথে লিগে থাকবে না। বেশ ঝরঝরে হবে।
৭) আঙুল বা হাত থেকে আংটি ও চুড়ি খুলতে
অনেক সময় আংটি চুড়ি আঙুল বা হাতের কবজি থেকে টেনেও খোলা যায় না। টানাটানি বাদ দিয়ে আঙুলে ও কব্জিতে একটু মাখন মাখিয়ে নিন। খুব দ্রুতই খুলে ফেলতে পারবেন আংটি বা চুড়ি।

Leave A Reply

Pinterest
Print