যেসব ফিচার হারিয়ে যাবে স্মার্টফোন থেকে

0
যেসব ফিচার হারিয়ে যাবে স্মার্টফোন থেকে

যেসব ফিচার হারিয়ে যাবে স্মার্টফোন থেকে

পুরোনো অনেক কিছু হারিয়ে যায় নতুন কিছুর আগমনে। প্রযুক্তির অনেক কিছুই এমন নিয়মে বাঁধা। স্মার্টফোনের কথাই ধরা যাক। একসময় স্মার্টফোনের যেসব ফিচার ছিল দারুণ জনপ্রিয়, তা সময়ের সঙ্গে জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে।

স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলো নকশা ও উদ্ভাবনে প্রতিদ্বন্দ্বীদের থেকে এগিয়ে থাকার চেষ্টা করছে। ক্যামেরা, হেডফোন জ্যাক কিংবা ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারের মতো বিষয়গুলোয় পরিবর্তন আসছে। একসময়ের নতুন অনেক প্রযুক্তি শিগগিরই হয়তো স্মার্টফোন থেকে হারিয়ে যাবে। এ রকম কয়েকটি ফিচার সম্পর্কে জেনে নিন:

একক ক্যামেরা: আগে স্মার্টফোনে ভালো ক্যামেরা মানেই ছিল বিস্ময়। স্মার্টফোনের পেছনে ভালো মানের ক্যামেরার আশা করতেন ব্যবহারকারীরা। কিন্তু এখন স্মার্টফোন নির্মাতারা এক ক্যামেরায় আটকে নেই। ডুয়েল বা ট্রিপল লেন্সের ক্যামেরার ফোন দেখা যাচ্ছে। গুঞ্জন উঠেছে, স্মার্টফোনের পেছনে ৫টি সেন্সর নিয়েও।

ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: স্মার্টফোন থেকে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর প্রযুক্তি বিদায় নিতে পারে। অ্যাপল তাদের এক্সএস, এক্সএস ম্যাক ও এক্সআর মডেলের আইফোনে পৃথকভাবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার দেয়নি। নিরাপত্তার জন্য যুক্ত করেছে ফেস আইডি প্রযুক্তি। অ্যান্ড্রয়েড ফোন নির্মাতা অপো ও ভিভো ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার তৈরি করছে। ওয়ান প্লাস ও স্যামসাংও একই পথে হাঁটছে।

হেডফোন জ্যাক: প্রচলিত ৩.৫ মিলিমিটার হেডফোনকে অধিকাংশ স্মার্টফোন নির্মাতা বিদায় দিচ্ছে। ওয়ানপ্লাস ৬টি মডেলের ফোনেও হেডফোন জ্যাক বাদ দেওয়া হতে পারে।

সিমকার্ড স্লট: ২০১৮ সালের নতুন আইফোন ই-সিম সমর্থন যুক্ত করছে অ্যাপল। শিগগিরই হয়তো অ্যান্ড্রয়েড ফোন নির্মাতারাও সিমকার্ড স্লট বাদ দিয়ে ই–সিমে যুক্ত হতে পারে।

মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট: স্মার্টফোনের পারফরম্যান্সে এক্সটার্নাল মাইক্রোএসডি কার্ড প্রভাব ফেলে, এটা জানা কথা। এখন তাই ফোন নির্মাতারা বেশি করে ইন্টারনাল স্টোরেজ বাড়াচ্ছে। ভবিষ্যতে মাইক্রোএসডি সুবিধা পুরোপুরি বন্ধ হতে পারে।

মোবাইল চার্জার: ধীরে ধীরে তারহীন চার্জিং প্রযুক্তি জনপ্রিয় হচ্ছে। এতে প্রচলিত চার্জারের ব্যবহার কমে যাবে। একটা সময় চার্জিং কেবল ও অ্যাডাপ্টর ব্যবহার ছেড়ে দেবে মানুষ। এর পরিবর্তে ওয়্যারলেস প্যাড জনপ্রিয় হবে।

স্পিকার: ভবিষ্যতে স্মার্টফোনের ডিসপ্লে স্পিকার হিসেবে কাজ করবে। ফলে পৃথকভাবে স্মার্টফোন স্পিকার রাখার দরকার হবে না। ইতিমধ্যে স্পিকারযুক্ত ডিসপ্লের ব্যবহার শুরু হয়েছে। ভিভো নেক্স ফোনে ডিসপ্লে থেকে শব্দ হয়।

ভলিউম বাটন: ফোনের সঙ্গে এখন ভলিউম বাড়ানোর জন্য যে বোতাম থাকে, ভবিষ্যতে তা থাকবে না। স্মার্টফোনে যুক্ত হবে মাল্টি ফাংশনাল বা একাধিক কাজের উপযোগী পাওয়ার বাটন।

ফোনের আকার: আমরা এখন চারকোনা ফোনের যে আকৃতি দেখি, ভবিষ্যতে ফোনের আকার এমন থাকবে না। শিগগিরই নমনীয় বা ভাঁজ করার সুবিধাযুক্ত স্মার্টফোন বাজার দখল করবে।

Leave A Reply

Pinterest
Print