রংপুরের ফুটপাতে শীত পোষাকের মেলা

0

Winter Rangpur

 

রংপুর ব্যুরো অফিস:

কুয়াশার চাদরে আবৃত শীত যেদিন থেকে বাংলাদেশে বেড়াতে এসেছে, সেদিন থেকেই বাংলার প্রকৃতিতে ভিন্ন এক পরিবর্তন লক্ষ্যণীয় কিন্তু তার চেয়ে ব্যতিক্রম রংপুর । প্রথম দিকে সন্ধ্যায় ও মাঝরাতে হালকা শীত করলেও দিনদিন শীতের তীব্রতা ক্রমেই বেড়েই চলেছে, শীতের এই তীব্রতা বাড়ার সাথে সাথে নগরীর বিভিন্ন ফুটপাতগুলোতে গড়ে উঠেছে পুরাতন শীতের পোষাকের দোকান । বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ শীতের এই তীব্রতা নিবারণের জন্য প্রতিনিয়ত ফুটপাতের দোকানগুলোতে ভিড় জমাচ্ছেন তাদের প্রয়োজনীয় শীতকালীন পোষাক ক্রয়ের জন্য । সাধারণত শেষ বিকেল থেকে সর্বোচ্চ রাত দশটা-এগারোটা পর্যন্ত খোলা থাকে ফুটপাতের এসব দোকান । কিন্তু সন্ধ্যা থেকে শুরু করে রাত আটটা-নয়টার মধ্যে বেচাকেনা বেশি হয় । বিভিন্ন বয়সীর হরেক রকম গরম কাপড়ের মাঝে সবাই তার পছন্দের জিনিসটি খুঁজতে থাকে । যথেষ্ট ধৈর্য্য নিয়েই খুঁজতে হয় এসব কাপড় । ফুটপাতের এসব দোকানে সববয়সী সবার জন্য সোয়েটার, জ্যাকেট, কোর্টসহ সবধরণের কাপড় পাওয়া যায় বলে রাস্তার ধারে মিনি মার্কেটগুলো গড়ে উঠেছে । তবে এগুলোর স্থায়ীত্ব শীতকাল পর্যন্তই ।

সাধারণত নগরীর সুরভী উদ্যান, মেডিকেল মোড়, স্টেশন রোড, মডার্ণ মোড়, বাস টার্মিনাল, কোর্ট চত্ত্বরসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে কমদামি শীতের পোষাকের দোকান গড়ে ‍উঠলেও এসব দোকানগুলোতে  সকল শ্রেণীর মানুষের সমাগম । কারণ এসব ফুটপাতে স্বল্পমূল্যে তাদের চাহিদা অনুযায়ী শীতের পোষাক ক্রয় করতে পারেন  । কিন্তু ফুটপাতের এসব কাপড়ের জনপ্রিয়তা দিনেদিনে বেড়ে যাওয়ার কারণে পোষাকের দামও সাধারণ শ্রমজীবী মানুষের হাতের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে । এই অবস্থায় নগরীর রেলস্টেশন রোডে গড়ে উঠা ফুটপাতের কমদামি শীতের পোষাকের দোকানে কমদামি ভেবে নিজের পোষাক কিনতে এসে তাজহাট এলাকার মজিবর নামে একজন রিক্সাচালক বলেন,“মুই ভাবছিনু ফুটপাতের এই দোকানগুলাত মোর মতো রিক্সাচালকরা তার কম ট্যাকাতে শীতের কাপড় কিনবার আইসে কিন্তু এখন দেখনু এগুলা দোকানত বড়লোকেরা কাপড় কিনে ।”

ফুটপাতের এ দোকানগুলোতে মধ্যবিত্ত ও উচ্চবিত্ত শ্রেণীটির ভিড় করার কারণ হিসেবে দেখা যায় শীত বাড়ার সাথে সাথে শহরের বিভিন্ন শপিং মল, গার্মেন্টস দোকানগুলোতে বাহারি রকমের গরম কাপড়ের বাড়তি আয়োজন থাকলেও সেগুলোর মূল্য অনেক বেশি ।যার কারণে ফুটপাতের দোকানগুলোতে শ্রমজীবী মানুষের পাশাপাশি চাকুরীজীবী ও অন্যান্য পেশার মানুষের সমাগম দেখা যায় । এদিকটা খেয়াল রেখেই ফুটপাতের শীতপোষাক ব্যবসায়ীরা স্বল্পমূল্যের কাপড়ের পাশাপাশি মাঝারিদামের কাপড় রাখেন ।তাই ফুটপাত এখন আর নিম্নবিত্ত শ্রেণীটিতে সীমাবদ্ধ নেই, বিভিন্নপেশার মানুষের সমাগমে রংপুরের ফুটপাতে জমে উঠেছে শীতকালীন পোষাকের মেলা ।

Leave A Reply

Pinterest
Print