রংপুরে নৌকার আট বিদ্রোহীকে বহিষ্কার, জাপা মরিয়া

0

up gt

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় ষষ্ঠ ধাপে ৯টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে কাল শনিবার। উপজেলার ৯টির মধ্যে ছয়টিতে বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় অস্বস্তিতে রয়েছে আওয়ামী লীগ। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দুর্গ ফিরে পেতে মরিয়া হয়ে কাজ করছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। আর বিএনপি সাংগঠনিক দুর্বলতার কারণে তিনটি ইউনিয়নে প্রার্থীই দিতে পারেনি।

বেতগাড়ি, কোলকোন্দ, বড়বিল, গঙ্গাচড়া, লক্ষ্মীটারী, গজঘণ্টা, মর্ণেয়া, আলমবিদিতর ও নোহালী ইউপিতে নির্বাচন হবে। বিদ্রোহীদের ইতিমধ্যে দলীয় পদ থেকে বহিষ্কার করেছে আওয়ামী লীগ। এরা হলেন বেতগাড়ি ইউপির মনিরুজ্জামান মনি চৌধুরী, ডা. দেব দুলাল রায়, কোলকোন্দ ইউপির আবু তায়েম চৌধুরী, আব্দুর রউফ, বড়বিল ইউপির রেদওয়ানুল হক রাসেল, লক্ষ্মীটারী ইউপির ফয়সাল হাসান, মর্ণেয়া ইউপির জিল্লুর রহমান ও আলমবিদিতর ইউপির সাদেকুল ইসলাম।

এদিকে কোন্দল মিটিয়ে দলীয় প্রার্থীদের জেতাতে সব ইউনিয়নে প্রার্থী দিয়ে এক হয়ে কাজ করছে জাতীয় পার্টি। আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে গত ২৭ এপ্রিল উপজেলা পরিষদ চত্বরে আয়োজিত বিশাল জনসভায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা এক হয়ে দলীয় মনোনীত প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করার নির্দেশ দেন নেতাকর্মীদের।

উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও লক্ষ্মীটারী ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী ওয়াহেদুজ্জামান মাবু বলেন, ‘সাংগঠনিকভাবে বিএনপি এখানে দুর্বল। এ কারণে তিনটি ইউনিয়নে প্রার্থী দেওয়া সম্ভব হয়নি।’

জাতীয় পার্টির উপজেলা সভাপতি সামছুল আলম বলেন, ‘স্বাধীনতার পর থেকে জাতীয় নির্বাচনে এই আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা নির্বাচিত হয়ে আসছেন। জাতীয় পার্টিতে এখন আর কোনো কোন্দল নেই। নেতাকর্মীরা মনোনীত প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করছেন।’

উল্লেখ্য, ৯টি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৬১ জন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১২৫ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩৮১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এসব ইউনিয়নে এক লাখ ৯৪ হাজার ২৫৫ জন ভোটার ৯৩টি কেন্দ্রে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। বিডিপি/আমিরুল

Leave A Reply

Pinterest
Print