রাবি’র অধ্যাপক হত্যায় নিজ বিভাগের শিক্ষার্থী জড়িত

0

Rejaulরাজশাহী সংবাদদাতা: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে হত্যা করেছে তারই বিভাগের এক শিক্ষার্থী। তার নাম শরিফুল ইসলাম। আজ সোমবার রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার সরদার তমিজ উদ্দীন আহমেদ সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘শিক্ষক রেজাউল হত্যাকাণ্ডে কোনো ব্যক্তিগত শত্রুতার কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। আদর্শিক কারণে মৌলবাদী সংগঠন এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে। শরিফুল গ্রেফতার হলে হত্যার মোটিভ জানা যাবে।’
এদিকে অধ্যাপক রেজাউল হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত বাগমারার দরগামাড়িয়া গ্রামের মসজিদের ইমাম রায়হানুল ইসলাম ও নগরীর ললিতহার এলাকার ছাত্রশিবির খায়রুল ইসলামকে চার দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। গত ২৮ এপ্রিল সাত দিনের রিমান্ডের আবেদনসহ পুলিশ তাদের আদালতে পাঠায়। সোমবার দুপুরে রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১ এ শুনানি শেষে বিচারক মোকসেদা আজগর তাদের প্রত্যেকের চারদিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আরএমপির মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম তাদের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশ জানায়, অধ্যাপক রেজাউল করিম হত্যাকাণ্ডে এখন পর্যন্ত পাঁচ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। তাদের মধ্যে ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী শরিফুল ইসলামের বাবা আব্দুল হাকিম ও ভাই আরিফুল ইসলাম রয়েছেন। শরিফুলের সঙ্গে পারিবারের সদস্যদের দেড় বছরের অধিক সময় ধরে কোনো যোগাযোগ নেই বলে দাবি করছেন তারা।
সূত্র মতে, অধ্যাপক রেজাউল হত্যায় শরিফুলের বাবা-ভাই ছাড়াও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী হাফিফুর রহমানকে চারদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।
উল্লেখ্য, গত ২৩ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নগরীর শালবাগান এলাকায় নিজ বাসার অদূরে অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। নিহত শিক্ষকের ছেলে রিয়াসাত ইমতিয়াজ সৌরভ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

Leave A Reply