লক্ষীপুরে নিজ দোকানে হাত-পা বেঁধে বৃদ্ধকে আগুনের ছ্যাকা, মারধর

0

লক্ষীপুর প্রতিনিধি: লক্ষীপুরে নিজ দোকানে হতা-পা বেঁধে শাহ আলম মীর প্রকাশ মুকুল (৬৫) নামের এক বৃদ্ধের গায়ে আগুনের ছ্যাকা ও মারধরের অভিযোগ উঠেছে। তার বড় ভাই ও ভাতিজার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন বৃদ্ধের মেয়ে শানু এবং স্ত্রী রৌশন আরা বেগম।
মঙ্গলবার (২৭ জুন) রাতে লক্ষীপুর পৌরসভার আটিয়াতলি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মুকুল দক্ষিণ মজুপুর গ্রামের মীর বাড়ির মৃত নজিব উল্যাহ মীরের ছেলে এবং ৪ কন্যার জনক।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে মুকুলের বড় ভাই মাহে আলম মীরের সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরে গত রাতে আটিয়াতলি এলাকায় নিজ কাপড়ের দোকানে মুকুলের হাত-পা বেঁধে মারধর এবং গায়ে আগুনের ছ্যাকা দেয়া হয়। তার কপাল ও পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আগুনের ফোসকা এবং মারধরের আঘাত রয়েছে। এ ব্যাপারে লক্ষীপুর সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার।
বৃদ্ধের মেয়ে শানু বলেন, আমার বাবা দোকান বন্ধ করে প্রতিদিন রাত ১০টার আগেই বাড়ি ফিরে। কিন্তু গতরাতে রাত ১১টা বাজলেও তিনি বাড়ি ফিরেন নি। তার মোবাইল বন্ধ থাকায় আমরা দোকানে গিয়ে তাকে হাত-পা বাধা ও অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করি। এসময় তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত ও মারধরের আঘাত দেখা যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগীতায় বাবাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করি।
এদিকে বৃদ্ধের স্ত্রী রৌশন আরা বেগম অভিযোগ করে জানান, তার বড় ভাসুরের সাথে তাদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। প্রায় সময় তারা মারধরের হুমকি দিয়ে আসতো। এর জের ধরে বড় ভাসুর মাহে আলম, তার ছেলে হিরন ও ইমরুজ দোকান বন্ধ করার সময় মুকুলকে বেঁধে নির্যাতন করে বলে তিনি অভিযোগ করেন।
লক্ষীপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক কমলাশীষ রায় বলেন, আহত বৃদ্ধকে হাসপতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার কপাল ও পিঠে আগুনের ছ্যাকাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

Leave A Reply

Pinterest
Print