শ্রীপুরে বিচার না পাওয়া বাবা-মেয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা

0

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ শ্রীপুরে মেয়ের নির্যাতনের বিচার না পেয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে বাবা-মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। ২৯ এপ্রিল শনিবার সকাল ৯টার সময় শ্রীপুর রেল স্টেশনের দক্ষিন পাশে আউটার সিগন্যালে দেওয়ানগঞ্জগামী তিস্তা এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে এ ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলো গোসিংগা ইউনিয়নের কর্নপুর (সিটপাড়া) গ্রামের মৃত মাহাম্মদ আলীর পুত্র হযরত আলী (৪৫) ও তার পালিত কন্যা আয়েশা আক্তার (১০)। রেলওয়ে পুলিশ নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।
আত্মহত্যার ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল হোসেন ও তার ছেলে মিথুনকে গ্রেফতার করেছে শ্রীপুর থানা পুলিশ। নিহত হযরত আলীর স্ত্রী হালিমা বেগম জানান, গত মাস খানেক আগে একই এলাকার ফজলুল হকের পুত্র ফারুক শিশু আয়েশাকে তার বাড়ীর পাশ থেকে সাইকেলে করে গভীর বনে নিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা করে। এসময় ফারুক ধর্ষনে ব্যর্থ হয়ে তাকে মারপিট করে আহত করে। এ ঘটনায় আমি বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করলে শ্রীপুর থানার এ.এস.আই বাবুল মিয়া ঘটনাটি তদন্ত করেন।
পরে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে স্থানীয় মেম্বার আবুল হোসেন ও প্রভাবশালীরা দৌড়ঝাঁপ শুরু করে।
এ ঘটনায় থানা পুলিশ কর্তৃক কোন বিচার না পাওয়ায় তার স্বামী মানসিকভাবে চাপে ভোগছিল। মেয়ের নির্যাতনের বিচার না পাওয়ায় মেয়েকেসহ ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে তার স্বামী আত্মহত্যা করেছে। হালিমা বেগম আরও জানান, গত শুক্রবার বিকেলে ফারুক, বোরহান, হামিদ, ফাইজ উদ্দিন মিস্ত্রি আমার মেয়ে আয়েশাকে অপহরন করে তুলে নেওয়ার জন্য চেষ্টা করেছে। আমার মেয়ে দৌড়ে তাদের কাছ থেকে রক্ষা পেয়েছিল।
অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসআই বাবুল মিয়া অভিযোগ পাওয়ার ঘটনাটি প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে অভিযোগ তদন্তের বিষয়টি তিনি স্বীকার করেন এবং অভিযোগটি স্থানীয় ভাবে মিমাংসার জন্য পরামর্শ দেন বলে জানান।
রেলওয়ে পুলিশের এস.আই সাইফুল ইসলাম জানান, নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় শ্রীপুর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Leave A Reply