Connect with us

খেলাধুলা

ক্রিকেটে তিন মোড়লের কর্তৃত্ব শেষ

Avatar photo

Published

on

cricet 3 leaderস্পোর্টস ডেস্ক: অবসান হতে পারে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) বিতর্কিত তিন মোড়ল নীতির। আইসিসির সভাতে এমন সিদ্ধান্তের ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। গত বুধবার বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির বোর্ড সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে, ২০১৪ সালে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতকে মূল ক্ষমতাধর করে আইসিসির সংবিধানে যে সংশোধনী আনা হয়েছে, সেটিকে পুনর্বিবেচনা করবে আইসিসি।

এর আগে নভেম্বরে দায়িত্ব নিয়েই এমন আভাস দিয়েছিলেন আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর। তবে সেটি তখনো তাঁর ব্যক্তিগত মতামত ছিল। এবার আইসিসির সভায়ও হলো এই সিদ্ধান্ত।

নির্বাহী এবং অর্থ-বাণিজ্য সংক্রান্ত আইসিসির সবচেয়ে ক্ষমতাধর এই দুই কমিটি থেকেও তিন প্রধানের স্থায়ী সদস্যপদ প্রত্যাহার করা হবে বলেও জানানো হয়। আগের গঠনতন্ত্রে আইসিসির হৃৎ​পিণ্ড বলে বিবেচিত এই দুই কমিটিতে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড স্থায়ী সদস্যপদ পেয়েছিল। এদের অপসারণের সুযোগ ছিল না।
এটিই ক্রিকেট দুনিয়ায় ‘বিগ থ্রি’ বা ‘তিন মোড়ল’ হিসেবে পরিচিতি পায়।

সাম্প্রতিক এই সংশোধনীতে বলা হয়েছে, আইসিসির স্বতন্ত্র অডিট কমিটির চেয়ারম্যানের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচিত চেয়ারম্যানের মেয়াদ হবে দুই বছর। কোনও চেয়ারম্যান তিনবারের অধিক মেয়াদে পদে অধিষ্ঠিত থাকতে পারবেন না। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি কোনও সদস্য দেশের ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা রাখতে পারবেন না।

সংশোধনী গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, ২০১৬ সালের জুন মাস থেকে গোপন ব্যালট পেপারের মাধ্যমে আইসিসির চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও চেয়ারম্যানে পদে নির্বাচন করতে হলে সে ব্যক্তিকে অবশ্যই বর্তমান বা সাবেক আইসিসির নির্বাহী পরিষদের সদস্য বা ডিরেক্টর হতে হবে। এছাড়া প্রার্থীকে দুজন পূর্ণ সদস্যর সমর্থন জোগাড় করতে হবে।

Continue Reading
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

খেলাধুলা

Muktadir and Sumaiya Clinch Victories at HM Salim Run 10K 2024 Marathon

Avatar photo

Published

on

The HM Salim Run 10K 2024 marathon witnessed Muktadir Ahmed and Sumaiya Akhtar triumphing in their respective categories. Held in the Diabari area of the city, organized by the Pinnacle Sports Association, this event showcased remarkable feats on Friday.

Muktadir Ahmed secured the top spot in the men’s 10 km category, completing the distance in an impressive 46 minutes. Sumaiya Akhtar dominated the women’s 7.5 km category, covering the distance in a remarkable 40 minutes.

Following closely behind were Sohail Rana and Mohammad Hriday, securing the first and second runners-up positions in the men’s category, while Nazmunnahar Bithi and Jahanara Akhtar claimed the first and second runners-up spots in the women’s category.

The marathon commenced at 7 am for the men’s category and at 7:30 am for the women’s category, witnessing enthusiastic participation with 572 male and 443 female runners.

The esteemed presence of Hossain Mohammad Salim, chairman of the Pinnacle Sports Association and an Imam of Hezbut Tawheed, as the chief guest, marked the occasion. In his address, he highlighted the vitality of awakening the youth and the association’s commitment to fostering energy through cultural programs and sports across Bangladesh.

Emphasizing the pivotal role of sports, Salim underscored its ability to guide and uplift the youth towards the right path. He praised the diverse participation, noting the unity and enthusiasm displayed by both young and elderly individuals in the marathon.

The event witnessed the attendance of Khadija Khatun, advisor to the Pinnacle Sports Association, Riyal Talukder, the general secretary, SM Samsul Huda, former general secretary, and several other distinguished personalities and sports enthusiasts.

The day-long event culminated in a vibrant closing ceremony, accompanied by a prize-giving ceremony to honor the winners and participants.

HM Salim Run 10K HM Salim Run 10K Nazmun Nahar Bithi HM Salim Run 10K 2024

Continue Reading

খেলাধুলা

এইচএম সেলিম রান টেন কে ২০২৪ ম্যারাথন দৌড়ে চ্যাম্পিয়ন মুক্তাদির-সুমাইয়া

Avatar photo

Published

on

এইচএম সেলিম রান টেন কে ২০২৪ তে পুরুষ ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন মুক্তাদির আহমেদ। নারী ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন সুমাইয়া আক্তার। শুক্রবার সকালে রাজধানীর উত্তরাস্থ দিয়াবাড়িতে পিনাকল স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে ‘সুস্থ সমাজ গঠনে খেলাধুলার বিকল্প নেই’ শীর্ষক এ ‘এইচএম সেলিম রান টেন কে ২০২৪’ ম্যারাথন দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

এদনি সকাল সাড়ে ৫টা থেকে প্রবল শীত ও কুয়াশা উপেক্ষা করে প্রতিযোগীরা প্রতিযোগিতার স্টার্টিং পয়েন্ট ১৮নং সেক্টরের ১০নং ব্রিজের নিকটে আসতে শুরু করেন। সাড়ে ৬টা থেকে ওয়ার্ম আপ শুরু হয়। সকাল ৭টায় বেজে ওঠে পুরুষ প্রতিযোগীদের ম্যারাথনের বাঁশি। এর ৩০ মিনিট পর শুরু হয় নারীদের প্রতিযোগিতা।

দৌড়ে পুরুষ প্রতিযোগিদের মধ্যে ৪৬ মিনিটে ১০ কিলোমিটার দৌড় শেষ করে প্রথম স্থান অধিকার করেন প্রতিযোগী মুক্তাদির আহমেদ, দ্বিতীয় হন সোহেল রানা (৪৭মিনিট) এবং তৃতীয় হন মোহাম্মদ হৃদয় (৪৭.৩০মিনিট)। নারীদের মধ্যে সাড়ে ৭ কিলোমিটার দৌড়ে ৪০মিনিটে প্রথম স্থান অধিকার করেন সুমাইয়া আক্তার, দ্বিতীয় স্থান নাজমুন্নাহার বিথী এবং তৃতীয় স্থান জাহানারা আক্তার। বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও সকল ফিনিশারকে মেডেল প্রদান করেন আয়োজক কর্তৃপক্ষ। জানা যায়, এই ম্যারাথন প্রতিযোগিতায় ৫৭২ জন পুরুষ ও ৪৪৩ জননারী অংশ গ্রহণ করে। যাদের মধ্যে তিনজন ব্যাতিরেকে সকলে এন্ডিং পয়েন্ট অতিক্রম করতে সক্ষম হয়।

পিনাকল স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রিয়াল তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিনাকল স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান ও হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম। উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম সামসুল হুদা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, পিনাকল স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা খাদিজা খাতুন, দৈনিক দেশেরপত্রের সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী, হেযবুত তওহীদের ঢাকা বিভাগীয় সভাপতি, ডা. মাহবুব আলম মাহফুজ, বরিশাল বিভাগীয় সভাপতি আল আমিন সবুজ, সিলেট বিভাগীয় সভাপতি আলী হোসেন, তারুণ্যের সভা সংগঠনের চেয়ারম্যান আয়েশা সিদ্দিকা প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি যৌথভাবে সঞ্চালনা করেন ক্রীড়াবিদ তাহের হোসেন মারুফ, ডা. তুহিন মাহমুদ, শাহ নেওয়াজ খান রিপন ও ফরিদ উদ্দিন রব্বানী প্রমুখ।

Continue Reading

খেলাধুলা

অন্তিম নিদ্রায় শায়িত ফুটবল সম্রাট পেলে

Avatar photo

Published

on

পেলে নামের রূপকথার যাত্রা ঠিক যেখানে শুরু হয়েছিল, ঠিক সেখানেই অন্তিম নিদ্রায় শায়িত হলেন তিনি। সান্তোসের ভিলা বেলমেরো স্টেডিয়ামের পাশেই অবস্থিত ১৪ তলার বিশাল সমাধিস্থল নেক্রপল একুমেনিকায় মঙ্গলবার ফুটবলের রাজা পেলেকে সমাধিস্থ করা হয়। সান্তোস এফসির সামনে ভিড় করা পেলে ভক্তদের আবেগঘন বার্তা ছিল অনেক। পেলের প্রিয় ক্লাব সান্তোস এফসির স্টেডিয়ামে ব্রাজিলীয় ভাষায় লেখা: ‘দীর্ঘজীবী হোন রাজা’। সবার চোখ একবার হলেও সেখানে আটকে গেছে।

ক্যানসারের সঙ্গে দীর্ঘ লড়াইয়ে হার মেনে গত বৃহস্পতিবার ৮২ বছর বয়সে অন্যলোকে পাড়ি জমান ব্রাজিলকে তিনটি বিশ্বকাপ জেতানো সর্বকালের সেরা ফুটবলার। সেই থেকেই কাঁদছে ব্রাজিল, কাঁদছে গোটা ফুটবল-বিশ্ব। প্রিয় ক্লাব সান্তোসের মাঠ ভিলা বালমিরো থেকে যখন তার মরদেহ বের করা হচ্ছিল, সেখানে প্রায় ২০ লাখের বেশি মানুষ অপেক্ষায় ছিল তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য। এরপর শতবর্ষী মায়ের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে ১৪ তলাবিশিষ্ট বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু সমাধিস্থল মেমোরিয়াল নেকরোপোল একিউমেনিকায় ফুটবলের রাজা চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন।

ভিলা বেলমেরো স্টেডিয়ামে পেলের কফিনবন্দি নিথর দেহ রেখে সোমবার সকালে শুরু হয়েছিল ২৪ ঘণ্টাব্যাপী শেষ শ্রদ্ধা জানানোর আনুষ্ঠানিকতা। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ১০টা পর্যন্ত লাখো মানুষ দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে অশ্রুভেজা চোখে শেষশ্রদ্ধা জানান ফুটবল সম্রাটকে। মঙ্গলবার সকালে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুলা দা সিলভা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানকে শ্রদ্ধা জানানোর পর শুরু হয় শেষযাত্রা।

শেষকৃত্যে যোগ দিতে আসা পেলের ভক্তদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ৫৯ বছর বয়সী কার্লোস মোতা। রিও ডি জেনিরো থেকে ৫০০ কিলোমিটারেরও বেশি পাড়ি দিয়ে তিনি পেলেকে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানাতে আসেন, ‘ব্রাজিলের জন্য পেলে যা করেছেন, তা ছোটবেলা থেকেই আমাকে দারুণভাবে প্রভাবিত করেছে। সে আমাদের জাতীয় নায়ক। আমি সব সময়ই আমার ছেলেকে একটি কথাই বলি, আমার কাছে তিনটি অবিসংবাদিত তথ্য আছে-বলের আকার গোল, ঘাসের রং সবুজ এবং পেলে সর্বকালের সেরা ফুটবলার।’

সাদা রঙের ফায়ার ট্রাকে ব্রাজিলের পতাকায় মোড়া পেলের কফিন ঘোরানো হয় সান্তোসের বিভিন্ন রাস্তায়। ফায়ার ট্রাকের ওপরে করে কফিন নেওয়া ব্রাজিলের একটি ঐতিহ্য। এর আগে ১৯৮৩ সালে মারা যাওয়া পেলের সতীর্থ গারিঞ্জার কফিনও ফায়ার ট্রাকে করে বহন করা হয়।

শবযাত্রার সময় রাস্তার দুপাশে ভিড় জমিয়ে পেলেকে শেষবিদায় জানান সাধারণ মানুষ। ভেজা চোখেই পেলেকে নিয়ে গান গাইতে দেখা যায় অনেককে। পেলেকে সমাধিস্থলে নিয়ে যাওয়া হয় তার পৈতৃক বাড়ির সামনে দিয়ে। যেখানে থাকেন তার শতবর্ষী মা সেলেস্তে আরান্তেস। আগের দিন ছেলেকে শেষবারের মতো দেখতে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল ভিলা বেলমেরোয়। পেলেকে সমাহিত করার আগে ধর্মীয় শেষকৃত্যানুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শুধু তার পরিবারের সদস্যরা।

ইউরোপের বিভিন্ন ক্লাব থেকেও প্রতিনিধি দল গিয়েছিল পেলের শেষকৃত্যে অংশ নিতে। তারা সহমর্মিতা জানিয়েছে পেলের স্ত্রী মার্সিয়া আওকি, তিন সন্তান এদিনহো, সিলেস্তে ও কেলি নাসিমেন্তোকে।

Continue Reading