যমুনাপারের জেলে, চাষি ও মাঝিদের জীবনচিত্র

0
169

fishermanমুক্তা আক্তার দিপা, সিরাজগঞ্জ:
তিব্বতের মানস সরোবর এবং কৈলাস পর্বতের মধ্যবর্তী একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য কেন্দ্র পার্খা থেকে ১৪৫ কি.মি. অদূরে চেমায়ুংদুং হিমবাহ থেকে উৎপত্তি ব্রহ্মপুত্র নদের। এটি আসামের বুকে ডিহাং নামে অভিহিত হয়ে পতিত হয় বঙ্গীয় সমভূমিতে। কুড়িগ্রাম জেলার মধ্যদিয়ে এটি বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। এই ব্রহ্মপুত্র নদের নিু প্রবাহই অভিহিত যমুনা নদী নামে।
পশ্চিম তীরের সিরাজগঞ্জের সাথে যমুনার আছে গাঢ় নিবিড় সম্পর্ক। সিরাজগঞ্জ মূল শহরটি গড়ে উঠেছে তার তীরে। যমুনার যাত্রাপথে তার দুই তীরে গড়ে উঠেছে বহু জনপদ যাদের অধিকাংশের জীবন এবং জীবিকা নির্ভর করে এই নদীর উপর। সময়ের ঘুর্ণিতে বদলেছে অনেক কিছু। বদলেছে যমুনাও। হারিয়েছে তার সেই তেজস্বী রূপ। কয়েক দশক আগেও যে যমুনা মানুষের ব্যবসা বাণিজ্যের মূল যাত্রাপথ হিসেবে বিবেচিত হত আজ তার বুকে জেগে ওঠা চরে ছেলেরা বল খেলে, ঘুড়ি ওড়ায়।
যমুনার তীরে হাঁটতে হাঁটতে কয়েকজনের সাথে কথা হলো যাদের জীবন এবং জীবিকা এই নদীর সাথে মিশে আছে। তারা দেখেছেন যমুনার প্রসন্ন ও অপ্রসন্ন রূপ দু’টোই। তেমনি একজন ৬০ বছর বয়সী আবদুর রহমান। তিনি ২০ বছর এই নদীতেই মাছ ধরেন। জিজ্ঞেস করলাম, কী কী মাছ ধরেন? আমি মারি কলাগাছি মাছ, ইচা মাছ। ইচা মাছই বেশি ওঠে। মাঝে মধ্যে আইর ধরি, বোয়াল ধরি, ট্যাংরা, চাইপলা এইগুলা আর কি। কী পরিমাণ মাছ ওঠে? বর্ষাকালে একটু বেশি মাছ পাওয়া যায়। কয়দিন ভালই মাছ পাইলাম, এহন আবার কইমা আইছে। প্রতিদিন কত টাকার মাছ বিক্রি করেন? ব্যাবাক (সকল) দিনে তো সমান মাছ অয়না। তবে বেচি তিন চারশ ট্যাহার মত। মাছ কেমন পান? আগের চেয়ে মেলা কম অয়। আগেতো বড় বড় পাঙ্গাস, বোয়াল, আইর ধরতাম, এহনতো এইগুলা পাই না। কেন পান না? দেহেন না নদীতে তো আর আগের নাগাল পানি নাই, ধার নাই। ধার না থাকলিতো আর মাছ অয় না। ব্যাক জায়গায় বাঁধ দিয়ে রাখছে মাছ আইব কোইত থ্যাইকা। তবে মাছ একটু বেশি হইলে বিক্রিও হইত, খাওয়াও হইত। সংসারডাও ভালভাবে চলত। ছাওয়াল পান গোনারে ইস্কুলে দিতাম।
আরেক বৃদ্ধ ৬৫ বছর বয়সী হেকমত আলী শেখ।
চাচা আপনি কি করেন? আবাদের কাম-কাজ করি। আপনার কি নিজস্ব কোন জমিজমা আছে? আছিলো অল্প স্বল্প, নদীর ধারে। জমিতে এখন কী চাষ করেন? কিচ্ছুই করি না, চাষ করমু কেমনে জমিতো সব নদীর মইধ্যে। জমি কতদিন যাবৎ পানির মইধ্যে আছে। জমি জমা তাওতো মন কয় (মনে হয়) সাত বছর ধইরা গেছে। আপনার সমস্যা হয় না? সমস্যা তো হয়ই, এখন সমস্যা হইলি আর কি করা যাইবো, আল্লাহ যা করে। টাকা পয়সার নাজাই (অভাব) পড়ে। তহন অন্য কাম করি। আপনি এখন কি করেন? এইতো মানষের কাজকাম করি। কি ধরনের কাজ করেন? কামলা দেই। জমিতে কী কী চাষ করতেন? ইরির আবাদ করতাম, গম বুনছি, তাবাদে খেসারির আবাদ করছি, মাসকালাইর আবাদ থাইকতো। এইরকম বিভিন্ন জিনিস আবাদ করছি। তখন ফলন কেমন হত? আগেই ভাল হইছে, এহন আর ভাল হয় না। এহনতো খালি বালু আর বালু। নদীর বর্তমান অবস্থা কেমন? আগে নদী আছিলো মেলা ফাঁকে (দূরে), এহন তো ভাঙ্গতে ভাঙ্গতে হিনে আইসে, নদী তো আইসা গেছে বাড়ির বোগলে। নদী ভাঙ্গায় তো সব শেষ।
৪০ বছর বয়সী সাইফুল ইসলাম।
পেশায় মাঝি। এই নৌকাটা কি আপনার? হ, এইডা আমারই নৌকা। নৌকা চালান কতদিন ধরে? যহন থেকে বুঝতে শিখছি, তহন থেহেই নৌকা চালাই। আপনি কীভাবে যাত্রী পারাপার করেন? এপার থিকা লোকজন ওপার নেই আবার ওপার থিকা লোকজন এপার আনি, আবার মাঝে মাঝে দূরে ভাড়ায় খাটাই। পারাপারে কোন সমস্যা হয় কি? তাতো আছেই, পারাপারের সময় নৌকা মাঝে মদ্যেই চরে ঠ্যাকে। আর কোন সমস্যা হয় না? নদীর মদ্যই থাকি সমেস্যা তো থাইকপই, সামনে ঝড়ের দিন আসতাইছে, তহন নৌকা নিয়া নদীতে থাকাই সমেস্যা। ডাহাইতের ভয় তো আছেই। আপনার ছোটবেলার যমুনা আর এখনকার যমুনার মধ্যে কী তফাৎ দেখছেন? এহন তো নদীর আর আগের নাগাল ত্যাজ নাই। তারপরও কেমন লাগে নদী? নদীই ধরেন এহন আমার ঘরবাড়ি, হারাদিনতো নদীতে থাকি। এহন একদিন যুদি নদীতে না আইসি বাইততে আর ভাল ঠেকেনা।
এভাবেই বাংলার বুকে এমন অসংখ্য আবদুর রকমান, হেকমত আলী, সাইফুল ইসলাম রয়েছে। যারা যুগ যুগ ধরে নদীকে ভালবেসেছে। নদীকে ঘিরেই তাদের জীবন-জীবিকা আবর্তিত হচ্ছে। নদী তীরবর্তী যাদের জীবনের এই হাল, যাদের নদীর সঙ্গে নিরন্তর যুদ্ধ চলছে, তাদের জীবনে অন্য কিছু করার সুযোগ নেই। মানবসৃষ্ট দুর্যোগের ফলে নদীর সাথে সাথে শোচনীয় পরিস্থিতির দিকে ধাবিত হচ্ছে এই মানুষগুলোও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here