শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে দুই জিরাফের মৃত্যু, কোর সাফারি পার্ক বন্ধ, মেডিক্যাল বোর্ড গঠন

মাহমুদুল হাসান, শ্রীপুর: গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে দুইটি জিরাফ মারা গেছে। বুধবার সকালে ওই দুইটি জিরাফ মারা যায় বলে নিশ্চিত করেছে পার্ক কর্তৃপক্ষ। এ ব্যাপারে পাঁচ সদস্যের একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠণ করা হয়েছে। সাফারি পার্কের “কোর সাফারি পার্ক” এলাকাটি দর্শণার্থীদের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তবে কেন ও কিভাবে ওই প্রাণি দুইটি মারা গেছে সে ব্যাপারে পার্ক কর্তৃপক্ষ মুখ খুলছে না।

সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক মো. শাহাবুদ্দিন জানান, মঙ্গলবার রাতে জিরাফ দুইটি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাদের চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞদের খবর দেয়া হয়। বুধবার দুপুরে ওই চিকিৎসকরা পার্কে পৌঁছানোর আগেই সকালে এরা মারা গেছে। এ ঘটনার পরে ’কোর সাফারি পার্ক’ বন্ধ রাখা রয়েছে। কোন দর্শণার্থীকে ভেতরে ঢুকার জন্য টিকেট দেয়া হচ্ছেনা।

সাফারি পার্কের প্রকল্প পরিচালক মো. সামসুল আজম জানান, দাঁড়ানো অবস্থায় হঠাৎ করে পড়ে গিয়ে জিরাফ দুইটি মারা গেছে। আগে থেকেই তাদের রোগের কোন লক্ষন বুঝা যাচ্ছিল না। এখন পার্কে ১০টি জিরাফের মধ্যে দুটি মারা যাওয়ায় ৮টি জিরাফ জীবিত রয়েছে। তবে রোগটি পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরেনারী মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক আব্দুর রহমানকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি ব্যাকটেরিয়াজনিত কোন রোগ। তবে কোন ব্যাকটেরিয়ার আক্রমনে জিরাফ মারা যাচ্ছে তা তিনি বলেননি। তবে রোগ সংক্রমনরোধে অতিরিক্ত সতর্কতার জন্য কোর সাফারি পার্কটি আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। পার্কের প্রধান ফটকে “অনিবার্য কারণবশত পুনরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত কোর সাফারি পার্ক বন্ধ থাকবে” কর্তৃপক্ষ বুধবার এমন নেটিশ টানিয়ে দিয়েছেন।

পার্কের চিকিৎসক মো. নিজাম উদ্দিনের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

একটি সূত্র জানায়, ছয়/সাড়ে ছয় বছর বয়সী নিহত মাদী জিরাফ দুইটির মূল্য প্রায় দেড় কোটি। ২০১৩ সাল থেকে ২০১৪সালের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে অফ্রিকা থেকে ১০টি জিরাফ কেনা হয়েছিল। পার্ক কর্মকর্তাদের দায়িত্ব অবহেলার কারণে জিরাফ দুইটি মারা গেছে বলে ওই সূত্রের দাবি। এব্যাপারে তদন্ত করলেই প্রকৃত তথ্য বেরিয়ে আসবে। এদিকে জিরাফের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই সাফারী পার্ক কর্তৃপক্ষ লুকোচুরি শুরু করে। সাফারী পার্কে কর্মরত কর্মকর্তাগণ সাংবাদিকদের সাথে মোবাইলে অথবা সরাসরি যোগাযোগ থেকে বিরত থাকে। এদিকে সাফারী পার্কে সাংবাদিকদের প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করে কর্তৃপক্ষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here