Bangladesherpatro.com

নওগাঁয় ৮১৭টি মণ্ডবে শারদীয় উৎসব, চলছে রং তুলির শেষ আঁচড়

নওগাঁ: নওগাঁয় এবার ৮১৭টি মন্ডপে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় শারদীয় উৎসব দূর্গাপূর্জার আয়োজন করেছেন। পূজা উপলক্ষে দিনরাত চলছে নানা আয়োজন। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পুজার প্রস্তুতি পর্ব প্রায় শেষ পর্যায়ে। মন্ডপে মন্ডপে রং তুলির শেষ আঁচড় দিয়ে প্রতিমা তৈরীর কাজ শেষ করতে ব্যস্ত সময় পার করছে প্রতিমা শিল্পীরা। এখন চলছে মন্ডপ গুলোতে প্যান্ডেল, আলোক সজ্জা নির্মাণসহ সাজ সজ্জার কাজ।

তবে নওগাঁয় করোনার কারনে শারদীয় উৎসবের অনুষ্ঠান গুলো সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। নওগাঁর মন্ডপে মন্ডপে প্রতিমার কাজ শেষ করতে ব্যস্ত প্রতিমা শিল্পীরা। এবারের পুজায় মন্ডপ গুলোকে বিশেষ ভাবে সাজানোর প্রস্তুতি চলছে। প্রতিমা শিল্পী ও আয়োজকরা জানান, রংয়ের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখন চলছে প্যান্ডেল নির্মাণ ও আলোক সজ্জার কাজ। তবে, এবার করোনার কারনে বেশ বড় আয়োজনে পুজা হচ্ছে না। ছোট পরিসরে পুজোর আয়োজন হওয়ায় প্রতিমা শিল্পীরা আর্থিক অনটনের মধ্যে পড়েছেন বলে জানান।

IMG 6676

নওগাঁ জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি নির্মল কৃষ্ণ সাহা জানান, এবার নওগাঁর ১১টি উপজেলা ও ৩টি পৌরসভায় ৮১৭টি পুজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হবে শারদীয় দূর্গোৎসব। ইতোমধ্যে দুর্গা পূজাকে কেন্দ্র করে প্রশাসনের সাথে কয়েক দফা আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। করোনা কালিন সময়ে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে, এবারের পুজো উৎসবমুখর হয়ে উঠবে। প্রতি বছরের মত এবারও জেলায় শান্তিপূর্ণভাবে পূজা অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন।

চলতি বছর নওগাঁ সদর উপজেলায় ১১৭টি, মহাদেবপুরে ১৫৮ টি, মান্দায় ১২৫টি, বদলগাছীতে ১০৫টি, পত্নীতলায় ৮১টি, নিয়ামতপুরে ৬৩ টি, রানীনগরে ৫১ টি, আত্রাইয়ে ৪৯ টি, ধামইরহাটে ৩৩টি, পোরশায় ১৮টি এবং সাপাহারে ১৭টি পূজামন্ডবে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। পূজা উৎসব শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন করার লক্ষে জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। শহরের কালিতলা পুজামন্ডপ, কাঠহাটি, তপোবন স্কুল, পার-নওগাঁ বারোয়ারী পূজামন্ডপ, জেলা প্রশাসনের কালেক্টর চত্ত্বেসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতিমার কারিগররা এখন ব্যস্ত। পূজামন্ডপগুলো ধুয়ে মুছে নতুন করে সাজানো হচ্ছে। কাঁদা-মাটি, বাঁশ, খড়, সুতলি দিয়ে শৈল্পিক ছোঁয়ায় তিলতিল করে নিপুণ হাতে গড়ে তুলছেন দেবীদূর্গার প্রতিমা। এখন প্রতিমা গুলোতে দেয়া হচ্ছে রং তুলির আঁচড়। আগামী ১১ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর ৫ দিন ব্যাপী ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। হিন্দু সম্প্রদায়ের সর্ববৃহত দুর্গা উৎসবকে সামনে রেখে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা লক্ষ্য করা গেছে।

নওগাঁ জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিভাষ মজুমদার গোপাল জানান, করোনার প্রকোপ কিছুটা কম থাকলেও এবারের মন্ডপে মন্ডপে স্বাস্থ্যবিধি মেনে, সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে যেন উৎসব অনুষ্ঠিত হয় সে ব্যাপারে নওগাঁ জেলার ১১ উপজেলার ৮১৭টি মন্ডপে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আমরা আশা করছি সুষ্ঠ সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন পরিবেশের মধ্যে দিয়ে এবারে শারদীয় দুর্গোৎসব সম্পন্ন হবে।

IMG 6715
১৫ অক্টোবর শুক্রবার দশমী তিথিতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দূর্গাপূজা বা দুর্গোৎসব। সনাতনী পঞ্জিকা অনুযায়ী, এবার মহালয়া হয়েছে ৬ অক্টোবর বুধবার। ১১ অক্টোবর ষষ্ঠী পূজার মধ্যে দিয়ে শুরু হবে মুল পূজার ৫দিন ব্যাপি আয়োজন।

এ ব্যাপারে নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার প্রকৌশলী মো. আবদুল মান্নান মিয়া বলেন, নওগাঁয় শারদীয় দূর্গোৎসবকে কেন্দ্র করে কোথাও কোন বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটতে দেয়া হবে না। প্রতিটি মন্ডপে আনসার বাহিনীর সাথে পুলিশ বাহিনী যৌথ ভাবে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে কাজ করবে। এছাড়াও জেলায় বেশ কয়েকটি মোবইল টিম শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার কাজে নিয়োজিত থাকবে। প্রতিটি পূজামন্ডপসহ আশেপাশের এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। পঞ্জিকা অনুসারে এবারে দেবী দূর্গা আসবে ঘোড়ায় চড়ে। যাবে দোলায় চড়ে। এরই মধ্যে বয়ে আনবে মানুষের জন্য মঙ্গলবার্তা। এমনটাই আশা সকলের।

মাহমুদুন নবী বেলাল/নওগাঁ/১০/১০/২০২১

Leave A Reply

Your email address will not be published.