Bangladesherpatro.com

লালমনিরহাটে ৬ দফা দাবিতে হেযবুত তওহীদের সংবাদ সম্মেলন

সীমাহীন অপপ্রচার, হত্যার হুমকি, হামলার উস্কানি ও ফতোয়া দিয়ে দাঙ্গা সৃষ্টির ষড়যন্ত্রকারীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের ৬ দফা দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে লালমনিরহাট জেলা হেযবুত তওহীদ।
রবিবার (৪ আগস্ট) বিকেল ৩ ঘটিকায় লালমনিরহাট বার্তা অফিসে
এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

লালমনিরহাট জেলা হেযবুত তওহীদের সাধারন সম্পাদক মোঃ একরামুল হক এর সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের জেলা সভাপতি মোঃ জাহেদুল হক ও উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আশেক মাহমুদ।

হেযবুত তওহীদের সাংগঠনিক সম্পাদক আশেক মাহমুদ বলেন, ‘১৯৯৫ সালে করটিয়ার দাউদ মহলে হেযবুত তওহীদ প্রতিষ্ঠা থেকেই এ আন্দোলনের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে সেই শ্রেণিটি যারা ইসলামকে তাদের রুটি-রুজির মাধ্যম বানিয়ে নিয়েছে এবং যারা অপরাজনীতিতে ধর্মীয় সেন্টিমেন্টকে ব্যবহার করে এ পর্যন্ত বিভিন্ন জাতিবিনাশী কর্মকা- ঘটিয়েছে। এ শ্রেণিটি জনগণের কাছে হাজারো বিভ্রান্তিমূলক অসত্য তথ্য, গুজব, বানোয়াট বক্তব্য প্রচার করে হেযবুত তওহীদের মতো মহান একটি আন্দোলনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য চেষ্টা করে এসেছে। শুধু তাই নয়, ধর্মান্ধ জনগোষ্ঠীকে লেলিয়ে দিয়েছে, হত্যা করতে প্ররোচনা দিয়েছে। এ পর্যন্ত তারা আমাদের চারজনকে নির্মমভাবে পিটিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করেছে। বহুজনকে আহত করেছে, বহু বাড়িঘর ভস্মীভূত করেছে, লুটপাট ভাঙচুর চালিয়েছে, বহু সদস্যকে বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদ করে দিয়েছে। সম্প্রতি এই শ্রেণিটি আরও ব্যাপক পরিসরে দেশজুড়ে সীমাহীন অপপ্রচার, হত্যার হুমকি, হামলার উস্কানি ও ফতোয়া দিয়ে দাঙ্গা সৃষ্টির ষড়যন্ত্রে গভীরভাবে লিপ্ত হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে অবিলম্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বেআইনি উস্কানিদাতাদের গ্রেপ্তারের ৬ দফা দাবি জানানো হয়।

৬ দফা দাবি সমুহঃ ১.গ্রামে গঞ্জে ওয়াজ মাহফিল করে ও মসজিদের খুতবায় হেযবুত তওহীদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার, হুমকি প্রদানকারী ফতোয়াবাজদের গ্রেফতার করে দ্রুত আইনের আওতায় আনতে হবে।

২.সোস্যাল মিডিয়াতে হেযবুত তওহীদ সদস্যদের জীবননাশসহ বিভিন্ন ধরনের ক্ষয় ক্ষতি সাধনের হুমকি দিচ্ছে তাদেরকে গ্রেফতার করে দ্রুত আইসিটি আইনের আওতায় আনতে হবে।

৩. দেশ ও জাতির স্বার্থে ধর্মব্যবসা, সাম্প্রদায়িকতা, ধর্মান্ধতা, জঙ্গিবাদ, ধর্ম নিয়ে অপরাজনীতি, মাদক ইত্যাদির বিরুদ্ধে দেশব্যাপী হেযবুত তওহীদের প্রচারকার্যে কোন ধর্মব্যবসায়ী গোষ্ঠী বা অন্য কোন ষড়যন্ত্রকারী যেন বাধা প্রদান করতে না পারে সে ব্যাপারে প্রশাসনের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করতে হবে।

৪. হেযবুত তওহীদের মাননীয় এমাম ও সদস্যদেরকে প্রাণনাশের এমনকি আত্মঘাতী হামলাও হুমকি দেওয়া হচ্ছে তাতে আমরা আশঙ্কা করছি আমরা যেকোন জায়গায়, যেকোন স্থানে আক্রান্ত হতে পারি । এমতাবস্থায় আমাদেরকে জান মালের নিরাপত্তা দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

৫. ধর্মান্ধতা সাম্প্রদায়িকতা মুক্ত একটি সমাজ বিনির্মাণে আমরা নিঃস্বার্থভাবে কোন রাজনৈতিক অভিসন্ধিহীন যে আদর্শিক লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি তার গুরুত্ব অনুধাবন করে আমাদের বক্তব্য জনগণের সামনে তুলে ধরার জন্য গণমাধ্যম কর্মীদেরকে অনুরোধ জানাচ্ছি।

৬.অবিলম্বে সকল ওয়াজ মাহফিলে, মসজিদের খোতবায়, ধর্মীয় সমাবেশে হেযবুত তাওহীদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার ও উস্কানি বন্ধ করার জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশ প্রদান করতে হবে।”

এসময় উপস্থিত ছিলেন লালমনিরহাট বার্তার সম্পাদক ও প্রকাশক গেরিলা লিডার ড. এস এম শফিকুল ইসলাম কানু, যমুনা টিভির আনীসুজ্জামান লাভলা, বিটিভির মৃদুল, জিটিভির আলতাফ হোসেন, জয়যাত্রা টিভির মাহাফুজুর রহমান, আনন্দ টিভির সাব্বির, নববিজয় টিভির আসাদুল ইসলাম সবুজ, বৈশাখী টিভির তৌহিদুল ইসলাম লিটন, দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার সৈকত, দৈনিক প্রথম আলোর আব্দুর রহমান সুজন, বাংলাদেশের খবর পত্রিকার এস কে সাহেদ, সময়ের আলো পত্রিকার তন্ময় আহমেদ নয়ন, নব চেতনার লিয়াকত আলী, দৈনিক সাঈফ পত্রিকার কাওসার আলী ও জেলা হেযবুত তওহীদের নেতৃবৃন্দ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.