Bangladesherpatro.com

রাবি ভর্তি যুদ্ধ: চূড়ান্ত আবেদন যেভাবে

4

২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত আবেদন প্রক্রিয়া শুরু করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) দুপুর ১২ টা থেকে শুরু হওয়া এ আবেদন চলবে ৩১ মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, এবার তিন ধাপে ভর্তিচ্ছুদের চুড়ান্ত আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। প্রথম ধাপের আবেদন চলবে ২৩ মার্চ ১২টা হতে ২৭ মার্চ বিকেল ৩টা পর্যন্ত মোট পাঁচ দিন। দ্বিতীয় ধাপে ২৭ মার্চ রাত ৮ থেকে ২৯ মার্চ সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত এবং তৃতীয় ধাপের আবেদন চলবে ২৯ মার্চ রাত ১০টা থেকে ৩১ মার্চ রাত ১২ টা পর্যন্ত।

চূড়ান্ত আবেদনের সকল তথ্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইটে (http//:admission.ru.ac.bd) পাওয়া যাবে।

চূড়ান্ত আবেদন করবেন যেভাবে: প্রথমে আবেদনকারীকে রাবির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে। তারপর RU Admission সাইটে প্রবেশ করতে হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা সংক্রান্ত তথ্য প্রদান: ওয়েবসাইটের হোমে পেজে ‘Start Application’ বাটনে চাপ দিয়ে পরবর্তী পেজে গিয়ে প্রার্থীকে SSC/সমমান এবং HSC/সমমান উভয় পরীক্ষার সকল তথ্য তথা রোল, শিক্ষাবোর্ডে ও পাশের বছর প্রদান করতে হবে। সেই সঙ্গে পেজে প্রদত্ত একটি ছবিতে দৃশ্যমান সংখ্যা ও অক্ষর (Captcha) যথাস্থানে ইনপুট দিতে হবে।

কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে শিক্ষাবোর্ডের স্থলে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে Technical-Vocational অথবা Technical HBM/DIC (Diploma in Commerce অথবা Business Management-এর ক্ষেত্রে), GCE (A লেভেল, O লেভেল), BFA ও ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং এর শিক্ষার্থীরা বোর্ডের স্থলে Other (GCE-A Level/BFA) সিলেক্ট করতে হবে।

সকল তথ্য সঠিক ভাবে পূরণ করে ‘Submit’ বাটনে চাপ দিলে আবেদনকারীর ছবিসহ ব্যাক্তিগত তথ্যের সাথে তার SSC/সমমান ও HSC/সমমান পরীক্ষার ফলাফল দেখা যাবে। সব তথ্য সঠিকভাবে মিলিয়ে নিতে হবে। প্রার্থী যে সব ইউনিটে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য নির্বাচিত হয়েছে তার একটি তালিকা প্রদর্শিত হবে।

ধারাবাহিক আবেদন প্রক্রিয়া: চূড়ান্ত আবেদনযোগ্য ইউনিটসমূহের তালিকা থেকে আবেদনকারী যে যে ইউনিটে আবেদন করতে ইচ্ছুক তাদের পাশে টিক চিহ্ন দিতে হবে (আবেদনযোগ্য এক বা একাধিক ইউনিটে একইসাথে আবেদন করা যাবে)। এরপর ‘Next’ বাটনে ক্লিক করার মাধ্যমে আবেদনের পরবর্তী ধাপে যেতে পারবে। ঠিক ঐ মুহূর্তে আবেদন করতে না চাইলে ‘Exit’ বাটনে ক্লিক করতে হবে।

ছবি পরিবর্তন ও ভুল সংশোধন: কোন পার্থী নিজের ছবি পরিবর্তন করতে চাইলে ‘Change Photo’ বাটনে ক্লিক করে ‘Photo Instruction’ মেনুতে প্রদত্ত নিয়ম অনুসরণ করে তা সম্পন্ন করবে। তবে ছবি পরিবর্তনের জন্য তাকে অতিরিক্ত ফি (২০০টাকা) প্রদান করতে হবে।

তাছড়া কোন তথ্য ভুল থাকলে ‘Back’ বাটনে ক্লিক করে পূর্ববর্তী ধাপে ফিরে গিয়ে তা সংশোধন করা যাবে। ‘Submit Application’ বাটনে ক্লিক দিলে প্রার্থীর আবেদন সম্পন্ন হবে এবং একটি ক্লিপ দেখতে পাবে।

উক্ত স্লিপে আবেদনকারীর ছবিসহ Application, Bill Number এবং সর্বমোট ফি এর পরিমাণ মুদ্রিত থাকবে। স্লিপটির নিচের দিকে অবস্থিত ‘Download Payslip’ বাটন ক্লিক করে স্লিপটি প্রিন্ট বা সংরক্ষণ করা যাবে। এই স্লিপটি ‘admid Card’ নয় কিন্তু প্রদত্ত তথ্য পরবর্তীতে প্রয়োজন হবে। OK বাটনে ক্লিকের মাধ্যমে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

ফি প্রদান ও আবেদন নিশ্চিতকরণ প্রক্রিয়া: স্লিপে প্রদত্ত ‘বিল নম্বর’ ব্যবহার করে রকেটের মাধ্যমে চূড়ান্ত আবেদন ফি প্রদান করার আবেদন নিশ্চিত করতে হবে। সংশ্লিষ্ট ফি প্রদান ব্যতীত আবেদন সম্পন্ন হবে না।ফি প্রদানের পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সংশ্লিষ্ট আবেদনের তথ্য ওয়েবসাইটে আপডেট করা হবে।

এডমিট ডাউনলোডের সময়সীমা: আগামী ২৭ মে দুপুর ১২টা থেকে ২জুন সন্ধ্যা ৬টা এর মধ্যে এডমিট কার্ড অবশ্যই ডাউনলোড করতে হবে। নির্দিষ্ট সময়ের পর এডমিট কার্ড ডাউনলোড করা যাবে না। এডমিট কার্ড ডাউনলোড করার পরেই একজন আবেদনকারী তার ভর্তি পরীক্ষার রোল নম্বর জানতে পারবে।

প্রাথমিক আবেদনের মধ্য হতে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে চূড়ান্ত আবেদনকারী নির্বাচন করা হয়েছে। তিনটি পর্যায়ে চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন করা হবে। প্রথম পর্যায়ের চূড়ান্ত আবেদন আজ মঙ্গলবার শুরু হয়ে আগামী ২৭মার্চ (শনিবার) বিকাল ৩টা পর্যন্ত চলবে। চূড়ান্ত আবেদনের ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১১০০টাকা (মোবাইল ফোন অপারেটর সার্ভিস চার্জসহ)।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.