পাকিস্তানে তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) ও পিএটি দলের আড়াই হাজার নেতাকর্মী আটক

0

53f07ec4e97e0আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সরকার বিরোধী আন্দোলন-বিক্ষোভে উত্তাল পাকিস্তান

সরকার বিরোধী আন্দোলন-বিক্ষোভে উত্তাল পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদ। সাবেক পাক ক্রিকেটার ইমরান খানের নেতৃত্বে ‘আজাদী’ ও বিতর্কিত আধাত্মিক নেতা তাহিরুল কাদরির নেতৃত্বে ‘ইনকিলাব’ র‌্যালি চলছে। পুরো পাঞ্জাব প্রদেশকে ঘিরে বড় ধরনের শো-ডাউনের আগে ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে সরকার। 

এ পর্যন্ত ইমরানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) ও কাদরির পাকিস্তান আওয়ামী তেহরিক (পিএটি) দলের প্রায় আড়াই হাজারের বেশি নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। আটকের পর তাদের পাঞ্জাবের ২৭টি কারাগারে রাখা হয়েছে। 

সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আদেশ বলে (৩-এমপিও) সাত দিন থেকে একমাস পর্যন্ত আটককৃতদের কারাগারে রাখতে পারবেন। 

ডন এক প্রতিবেদনে জানায়, সরকারের কাছ থেকে পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত তাদেরকে কারাগারেই রাখা হবে।

দুইদিন ধরে চলমান এই সমাবেশকে ঘিরে পুরো ইসলামাবাদকে ঘিরে ব্যাপক নিরাপত্তা জোরদার করেছে ক্ষমতাসীন পাকিস্তান মুসলিম লীগ (পিএমএল-এন)। সরকার প্রথমে সমাবেশে কড়াকড়ি আরোপ করলেও পরে তা কিছুটা শিথিল করে।

এখন পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পদত্যাগের দাবিতে দুই দলই অটল আছেন। 

এদিকে বর্তমানে পাকিস্তানে সব আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছেন ইমরান খান। তাকে ঘিরেই অনেকে সরকার উৎখাতের কথা বলছেন। রোববার ডননিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে ইমরান খান বলেন, সর্বোচ্চে এক সপ্তাহের মধ্যেই সরকারের পতন হবে।

সরকারকে ৪৮ ঘণ্টার সময় দিয়ে তাহিরুল কাদরি বলেন, এই সময়ের মধ্যেই তাদের দাবি দাওয়া মেনে নিতে হবে। পুলিশের কাছে নওয়াজ শরিফের আত্মসমর্পণেরও দাবি করেন তিনি।

অন্যদিকে সমাবেশকে ঘিরে আত্মঘাতী হামলার আশঙ্কা করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিসার আলী খান। উচ্চ পর্যায়ের গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, পিটিআই ও পিএটি ৠালি ঘিরে জঙ্গিরা হামলার পরিকল্পনা করছে।

ডনের খবরে বলা হয়, ইমরান-কাদরিকে আলোচনার টেবিলে বসার জন্য সরকারের বিভিন্ন মহল থেকে চেষ্টা করা হচ্ছে।

Leave A Reply

Pinterest
Print