লক্ষীপুরে কর্মচারীকে মারধরের অভিযোগ প্যাথলজি কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে

0

রুবেল হোসেন,লক্ষীপুর: লক্ষীপুরে মেডিকেল টেকনোলজিস্ট মো. সাগর আলীকে (২৫) মারধরের অভিযোগ উঠেছে নিরাময় ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামে একটি প্যাথলজির কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।
বুধবার (২৫ জুলাই) বিকেলে শহরের হাসপাতাল রোডে ওই প্যাথলজিতে মারধরের ঘটনা ঘটে। পরে তার সহযোগীরা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ল²ীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। আহত টেকনেশিয়ান সাগর আলী টাঙ্গাইল জেলার টেলিয়া গ্রামের আবদুল জলিলের ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, প্রতিদিনের মতো সাগর দুপুরে খাবারের জন্য বাসায় যায়। কয়েক মিনিট পরে প্যাথলজীর শেয়ার হোল্ডার সুলতান মাহমুদ রাসেল মুঠোফোনে সাগরকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে দ্রুত প্যাথলজীতে আসার জন্য বলা হয়। সাগরের আসতে ১০ মিনিট বিলম্ব হওয়ায় প্যাথলজিতে ঢোকার সাথে সাথে কিছু বুঝে উঠার আগেই রাসেল তাকে মারধর শুরু করে। এতে সে গুরুতর আহত হয়ে পড়ে।
এদিকে ঘটনার পর নিরাময় ডায়াগনস্টিক সেন্টারে গিয়ে প্যাথলজি কর্তৃপক্ষের কাউকে পাওয়া যায়নি।
মেডিকেল টেকনোলজিস্ট এসোসিয়েশনের ল²ীপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন বলেন, সাগর ১ বছর ধরে নিরাময় ডায়াগনস্টিক সেন্টারে করে আসছে। দুপুরে খাবার খেতে গেলে ১৫ মিনিটের মাথায় তাকে কল গালমন্দ করা হয় প্যাথলজীতে আসার জন্য। পরে সে আসলে বিনা কারণে রাসেল নামে এক প্যাথলজি কর্তৃপক্ষ তাকে মারধর করে। আমরা এর সুষ্ঠ বিচার চাই। বিচার না পেলে সারা দেশে কর্মসূচীর আহবান করা হবে বলে জানান তিনি।
নিরাময় ডায়াগনস্টিক সেন্টারের শেয়ার হোল্ডার সুলতান মাহমুদ রাসেল মারধরের বিষয় অস্বীকার করে মুঠোফোনে বলেন, ঢাকা থেকে ডাক্তার আসছে। প্যাথলজীতে কেউ না থাকায় সাগরকে দ্রুত আসতে বলি। সে এসে আমার সাথে রাগা-রাগী করে। এসময় আমাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। তাকে মারধরের বিষয়টি সত্য নয়।
লক্ষীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লোকমান হোসেন জানান, মারধরের ঘটনায় এখনো থানায় কোন অভিযোগ আসেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave A Reply

Pinterest
Print