হাসিনা খুনি, আওয়ামী লীগ খুনের দল: বিএনপি

0

স্টাফ রিপোর্টার:
“প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে খুনি, তার দল আওয়ামী লীগ একটি খুনি দল হিসেবে পরিচিত; সারা জাতি ও বিশ্ববাসী তা জানে” এই মন্তব্য করেছে বিএনপি। গতকাল সকালে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ মন্তব্য করেন। এ সময় ঢাকা মহানগরীর আহ্বায়ক ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত, শনিবার এক অনুষ্ঠানে র্প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানসহ তার পরিবারকে খুনি পরিবার বলে আখ্যায়িত করেন। এর দুদিন আগে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবসে বর্বরোচিত এই ঘটনায় বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে দায়ী করে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী। সেই বক্তব্যের জবাব দিতেই বিএনপির এই সংবাদ সম্মেলন।
ফখরুল বলেন, “আওয়ামী লীগ সরকারকে সারা জাতি ও বিশ্ববাসী খুনি হিসেবে জানে। তারা গত নভেম্বর থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত তাদের পেটোয়া বাহিনী দিয়ে ৫০০ মানুষকে হত্যা করেছে। ৬৫ জনকে গুম করেছে। অগণিত মানুষের রক্তে রঞ্জিত করেছে রাজপথ।” তিনি বলেন, “গণবিরোধী এই সরকার জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে এখন সবকিছু দলীয়করণের মাধ্যমে বাকশাল কায়েম করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চাচ্ছে।” ফখরুল অভিযোগ করেন, “গ্রেনেড হামলা মামলা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য বিচার প্রক্রিয়াকে শুধু প্রভাবিতই করছে না, বিভ্রান্তও করছে। নিঃসন্দেহে তার বক্তব্য আদালত অবমাননার সামিল। অবশ্য আওয়ামী লীগের সভানেত্রী এ ধরনের বক্তব্য দিতে অভ্যস্ত।” ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাকে ‘জঘন্যতম হামলা’ উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল তখন এ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে। প্রকৃত দোষীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করেছে। বিএনপি এখনো চায়, এ ঘটনার প্রকৃত তথ্য উদঘাটিত হোক। কিন্তু এটিকে রাজনৈতিক হীনউদ্দেশ্যে ব্যবহার করা কাম্য নয়। উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তারেক রহমানকে এ মামলায় জড়ানো হয়েছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। ফখরুল দাবি করেন, “বাংলাদেশের সবচেয়ে জনর্প্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া। তিনি তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। কোনো নির্বাচনে তিনি পরাজিত হননি। তাকে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো এবং কুৎসা রটানো দুঃখজনক।”

Leave A Reply

Pinterest
Print