বাগেরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসক সংকট, চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত ১৬ লাখ মানুষ

0

kabir-bagerhat-newsবাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাট জেলার একমাত্র সদর হাসপাতালে চিকিৎসক সংকটের কারনে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ১৬ লাখ লোক চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে । জেলার প্রধান এ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ‘আধুনিক হাসপাতাল’ ‘নারী-বান্ধব’ শিশু-বান্ধব, ‘যুবা-বান্ধব’ সব উপাধি থাকলেও নেই চিকিৎসক। এখানে শিশু, অর্থোপেডিক, মেডিসিন, সার্জারি, অ্যানেস্থেশিয়া, রেডিওলজি, ইউনানি, ডেন্টাল, প্যাথলজি ও চক্ষুর কোন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নেই। ফলে চিকিৎসা ব্যবস্থা আক্ষরিক অর্থেই ভেঙ্গে পড়েছে। চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন রোগীরা। চিকিৎসক শুন্যতায় ক্রমশ: অনাকাঙ্খিত মৃত্যু ও চরম দুর্ভোগ বাড়ছে।
সদর হাসপাতাল সূত্রে জানাগেছে, সদর হাসপাতালে চিকিৎসকের ২৯টি পদের মধ্যে ১৯টি শূন্য। কনসালট্যান্টের ১২টি পদের মধ্যে ৯-টিই শূন্য। এখানে চতুর্থ শ্রেণীর ৬৫টি পদের মধ্যে ৪৪টি শূন্য। অন্যান্য পদগুলোরও একই অবস্থা। এখানকার চিকিৎসক সংকটের কথা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এমনকি জাতীয় সংসদে একাধিক বার উত্থাপিত হলেও আজও কোন প্রতিকার মেলেনি। সম্প্রতি এ দুরাবস্থা আরও বেড়েছে। হাসপাতালটি এখন আর রোগী ধারণের অবস্থায় নেই।
বাগেরহাটের সিভিল সার্জন অরুন কুমার মন্ডল বলেন, সদর হাসপাতালে চিকিৎসক সংকটসহ নানা সমস্যা রয়েছে। সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিভিন্ন সময়ে এসব বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে। তার পরও অন্য উপজেলা থেকে মেডিকেল অফিসারদের এনে রোগীদের সর্বোচ্চ সেবার চেষ্টা চলছে।
বাগেরহাট সদর হাসপাতাল ও জেলা স্বাস্থ্য কমিটির সভাপতি এ্যাডভোকেট মীর শওকাত আলী বাদশা এমপি জানান, এ হাসপাতালে ডাক্তার শুন্যতার বিষয়ে একাধিকবার মহান জাতীয় সংসদের মাধ্যমে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করা হয়েছে। দ্রুত এ সমস্যার সমাধান হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Leave A Reply

Pinterest
Print