সোনাগাজীতে ছাত্রলীগ কর্মী অপহরনের নাটক

0

sonagazi

সৈয়দ মনির আহমদ, সোনাগাজী প্রতিনিধি: ফেনীর সোনাগাজীতে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে অপহরনের নাটক সাজিয়ে নিজেই ফেঁসে গেলেন ছাত্রলীগ কর্মী। ঘটনার নায়ক রবিন সোনাগাজী সরকারী কলেজের ১ম বর্ষের ছাত্র ও সদর ইউনিয়নের মুহুরী বাড়ীর বিএনপি নেতা সাহাবুদ্দিনের ছেলে। সুত্র জানায়, দীর্ঘ দিন যাবত সাহাবুদ্দিনের সাথে একই বাড়ীর মৃত ওহিদুর রহমানের ছেলে নুরুল আজমের সাথে ভুমি বিরোধ চলছে। উভয় পক্ষের মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে । এ নিয়ে আদালতে কয়েকটি পাল্টাপাল্টি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। সাহাবুদ্দিন জানায় , রবিবার সোনাগাজী কলেজ থেকে সহপাঠীদের সাথে রবিন বনভোজনে যায়। সন্ধায় সবাই ফেরত আসলেও সে ফিরে আসেনি এবং তার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ থাকায় আমি রাতেই সোনাগাজী মডেল থানায় ডায়েরি করলে পুলিশ অনেক চেষ্টা করেও তার কোন সন্ধান পায়নি। অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাতেই পুলিশ অপহরনের সাথে জড়িত সন্দেহে আজমের ভাই রাশেদ (৪০) ও ছাত্রলীগ কর্মী পারভেজ (২২) কে আটক করে। সোমবার সকালে রবিন তার ব্যবহৃত মোবাইল থেকে টেলিফোনে ফেনীতে অবস্থানরত তার পিতাকে জানায় তাকে হাত পা ও চোখ বেঁধে বহুতল ভবনের একটি অন্ধকার কক্ষে আটকে রাখা হয়েছে। এর পর ফোনটি বন্ধ থাকে। সোমবার বিকালে রবিন একটি সিএনজি অটোরিক্সা যোগে কিছু অজ্ঞাত যুবক তাকে বাড়ীতে রেখে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে সোনাগাজী মডেল থানার এএসআই মনিরুল ইসলাম তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এদিকে আজম জানায় , পুর্ব শত্রæতার জেরে তাদেরকে ফাঁসাতে সাহাবুদ্দিন তার মাদকাসক্ত ছেলেকে দিয়ে অপহরনের নাটক সাজিয়েছে। মিথ্যা হয়রানির জন্য আমি তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করবো। সোনাগাজী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইদুল হক জানান, রবিন কলেজ ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী। এ ব্যাপারে সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন, পুরো বিষয়টি রহস্যজনক মনে হচ্ছে। উভয় পক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনার প্রকৃত ক্লু উদঘাটনের চেষ্টা চলছে।

Leave A Reply

Pinterest
Print