Connect with us

খেলাধুলা

কোস্টারিকার জালে স্পেনের গোল উৎসব

Published

on

দোহার আল থুমামা স্টেডিয়ামে বুধবার ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে কোস্টারিকাকে ৭-০ গোলে হারিয়ে রেকর্ড জয় দিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করল স্পেন।

বিশ্বকাপে এটাই তাদের সবচেয়ে বড় জয়।এর আগে ১৯৯৮ সালে বুলগেরিয়ার বিপক্ষে ৬-১ ব্যবধানে জিতেছিল স্পেন।

সেই রেকর্ড ভেঙে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে ৭ গোল দিল তারা।জোড়া গোল করেন ফেররান তরেস। একটি করে দানি ওলমো, মার্কো আসেনসিও, গাভি, কার্লোস সলের ও মোরাতা।

কোস্টারিকাকে উড়িয়ে স্পেন দাপটের সঙ্গে শুরু করল বিশ্বকাপ অভিযান।সুন্দর ফুটবলের পসরা সাজিয়ে বসেছিল এনরিকের স্পেন।

কীভাবে জায়গা বের করে নেওয়া যায়, তারই যেন উদাহরণ ছিল পেদ্রি, গাভি, ওলমোদের একেকটি মুভ। তাদের আক্রমণের ঝাপটা সামলে গোলের জন্য একটি শটও নিতে পারেনি কোস্টারিকা।

আক্ষরিক অর্থে প্রথম মিনিট থেকে যেন ঝাঁপিয়ে পড়ে স্পেন। পঞ্চম মিনিটে পেয়ে যায় গোলের প্রথম সুযোগ। পেদ্রির কাছ থেকে বল পেয়ে দূরের পোস্টে একটুর জন্য শট লক্ষ্যে রাখতে পারলেন না অরক্ষিত ওলমো।

নবম মিনিটে সুযোগ তৈরি করলেন পেদ্রি। কিন্তু কাজে লাগাতে পারলেন না আসেনসিও। রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ডের শট বেরিয়ে গেল বার ঘেঁষে।

এর দুই মিনিট পর ফুরাল গোলের জন্য স্পেনের অপেক্ষা। ডি-বক্সের একটু বাইরে থেকে চমৎকার চিপে গাভি খুঁজে নিলেন ওলমোকে। প্রথম স্পর্শে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে, এগিয়ে আসা গোলরক্ষক কেইলর নাভাসকে এড়িয়ে জাল খুঁজে নিলেন তিনি।

৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় স্পেন। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ব্যবধান আরও বাড়ান তরেস। সতীর্থের কাছ থেকে ডি-বক্সে বল পেয়ে শট নিয়েছিলেন তরুণ ফরোয়ার্ড। কিন্তু কোস্টারিকার এক ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে বল যায় তার কাছেই। এবার ঠিকই জাল খুঁজে নেন তিনি।

হ্যাটট্রিকের সুযোগ পাননি তরেস। এই গোলের একটু পরেই তাকে ও পেদ্রিকে তুলে নিয়ে মোরাতা ও কার্লোস সলেরকে নামান এনরিকে।

এরপর কোচ আরও তিনটি পরিবর্তন করেন, তবে স্পেনের খেলায় কোনো পরিবর্তন হয়নি। একইরকম আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে যায় তারা।

৯০তম মিনিটে দলের ষষ্ঠ গোলটি করেন সলের। নিকো উইলিয়ামসের ক্রস ঝাঁপিয়েও ঠিক মতো ফেরাতে পারেননি নাভাস। বল যায় সরাসরি সলেরের কাছে। ঠিক সময়ে ঠিক জায়গায় থাকা মিডফিফল্ডার বাকিটা সারেন অনায়াসে।

অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে স্পেনকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যান মোরাতা। তার পা থেকেই আসে শেষ গোল।

২০১০ আসরে বিশ্বকাপ জয়ের পথে মোটে আট গোল করেছিল স্পেন। এবার আসর শুরু করল সাত গোলে প্রতিপক্ষকে ভাসিয়ে।

এই জয়ে ৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে উঠেছে স্পেন। দিনের আন্য ম্যাচে জার্মানিকে ২-১ গোলে হারানো জাপান আছে দুই নম্বরে।

Continue Reading
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Highlights

কানাডার বিপক্ষে ১-০ গোলের জয় বেলজিয়ামের

Published

on

বিশ্বকাপের ‘এফ’ গ্রুপের ম্যাচে বুধবার (২৩ নভেম্বর) রাতে মাঠে নামে কানাডার বিপক্ষে ১-০ গোলের জয় পেয়েছে ইউরোপের পরাশক্তি বেলজিয়াম। তবে ম্যাচের ১১ মিনিটে কানাডার হয়ে আলফোনসো ডেভিসের করা পেনাল্টি যদি বেলজিয়ামের গোলরক্ষক কার্তোয়া আটকে না দিতেন তাহলে হয়তো ফলাফল হতো ভিন্ন। অন্যদিকে প্রথমার্ধের শেষদিকে পাওয়া একমাত্র গোলে পাওয়া জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে গত বিশ্বকাপের তৃতীয় স্থান অর্জনকারীরা।

পুরো ম্যাচে বল দখলে এগিয়ে ছিল শুধু বেলজিয়ামরা। তবে সব জায়গাতেই সমান তালে লড়াই করেছে কানাডা। ম্যাচের ১১ মিনিটে কানাডার এক খেলোয়াড়ের করা শট গিয়ে লাগে ডি-বক্সের ভিতরে বেলজিয়ামের উইঙ্গার কারেসকোর হাতে। সেখান থেকে ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টি পায় কানাডা। তবে ডেভিসের নেয়া পেনাল্টি ডানদিকে ঝাপ দিয়ে রুখে দেন কোর্তোয়া। এরপর অনেকবার আক্রমণ করেছেন কানাডা। তবে প্রতিবারই দেয়াল হয়ে দাঁড়ান বেলজিয়ামের গোলরক্ষক।

প্রথমার্ধের শেষ সময়ে (৪৪ মিনিট) অল্ডারউয়েরেল্ডের বাড়ানো বলে বাতসুয়াইর অন টাচ শট পায় জালের ঠিকানা। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় বেলজিয়াম।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে উভয় দলই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ চালিয়ে গেলেও গোলের দেখা পায়নি কেউই।

এদিকে ইনজুরির কারণে আগেই জানা হয়ে গিয়েছিল বেলজিয়ামের একাদশে দেখা যাবেনা লুকাকুকে। তাই আজ তাকে দেখা গেল বেঞ্চেই। এছাড়াও গত বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান অধিকার করা বেলজিয়াম সেরা একাদশ নিয়েই মাঠে নেমেছে।

Continue Reading

খেলাধুলা

মামুনুর রশিদ স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন রঙ্গপুর

Published

on

নিজস্ব প্রতিবেদক:
‘মামুনুর রশিদ স্মৃতি ক্রীড়া সংঘ’ কর্তৃক আয়োজিত ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২২ এর ফাইনাল খেলায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ‘রঙ্গপুর ক্রীড়া চক্র’ রংপুর।

বুধবার (১২ অক্টোবর) বিকেল তিনটায় জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর মজিবর রহমান সরকারি কলেজ মাঠে উক্ত খেলায় রঙ্গপুর ক্রীড়া চক্র মামুনুর রশিদ স্মৃতি ক্রীড়া সংঘকে ৪-১ গলে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হন। উক্ত ফাইনাল টুর্নামেন্ট ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হন রঙ্গপুর ক্রীড়া চক্রের খেলোয়াড় গালিব।

ফাইনাল টুর্নামেন্টে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের খেলোয়াড়বৃন্দের হাতে ট্রফি তুলে দেন আক্কেলপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম আকন্দ।

এসময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, ধর্ম-ব্যবসা অপরাজনীতি ও ধর্মীয় উন্মাদনার বিরুদ্ধে তরুন ও যুব সমাজকে ঐক্যবদ্ধের মাধ্যমে জাগ্রত করতে সুস্থধারার ক্রিড়া চর্চার বিকল্প নেই বলে বক্তব্য রাখেন, আক্কেলপুর পৌরসভার মেয়র মেয়র শহিদুল আলম চৌধুরী, আক্কেলপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম ডাবলু, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মজিবর রহমান, উপজেলা জাসদের সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন উজ্জ্বল প্রমুখ।

মামুনুর রশিদ স্মৃতি ক্রীড়া সংঘ জয়পুরহাট কর্তৃক আয়োজিত ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন হেযবুত তওহীদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জনাব মশিউর রহমান। এ সময় তিনি বলেন, তরুণ ও যুব সমাজকে মাদক সন্ত্রাস থেকে ফেরাতে হলে এই ধরনের সুস্থ ধারার ক্রীড়া চর্চার কোন বিকল্প নেই। হেযবুত তওহীদ বিগত ২৭ বছর ধরে অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ উপায়ে ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা দ্বারা মানবজাতিকে ঐক্যবদ্ধ করার লক্ষ্যে সভা, সেমিনার, ক্রীড়া চর্চাসহ নানামুখী কার্যক্রম করে যাচ্ছে। আমরা হেযবুত তওহীদ বিশ্বাস করি সারা পৃথিবীময় যে অন্যায় অশান্তিপূর্ণ সংকট চলছে সেই সংকট নিরসনে হেযবুত তওহীদের প্রস্তাবনা ‘ধর্মের প্রকৃত শিক্ষা’ দ্বারা মানবজাতিকে ঐক্যবদ্ধ করার কোন বিকল্প নেই। হেযবুত তওহীদের সেই কাজকে আরও বেগবান করতে উপস্থিত সকলের সহযোগিতা কামনাও করেন তিনি।

মামুনুর রশিদ স্মৃতি ক্রিড়া সংঘের সভাপতি মাসুদ রানা চৌধুরীর সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, হেযবুত তওহীদের কেন্দ্রীয় ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রিয়াল তালুকদার, হেযবুত তাওহীদ বগুড়া- জয়পুরহাট অঞ্চলের সভাপতি আশেক মাহমুদ, আক্কেলপুর উপজেলা শাখার সভাপতি গাজীউল ইসলামসহ মামুনুর রশিদ ক্রীড়া স্মৃতি সংঘের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

খেলার শুরুতে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ হেযবুত তওহীদের আক্কেলপুর উপজেলা শাখার সাবেক সভাপতি মরহুম মামুনূর রশিদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় এক মিনিট নিরবতা পালন করেন।

Continue Reading